চকরিয়ায় দরবার শরীফের খাদেম পরিবার সদস্যকে মারধরে চেয়ারম্যানের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

Chakaria-Pc-25-09-2021.jpg

নিজস্ব প্রতিবেদক : চকরিয়ায় ইউপি চেয়ারম্যান মিরানুল ইসলামের বিরুদ্ধে হারবাং শাহ্ সুফি দরবার শরীফের খাদেম পরিবারের তিন সদস্যকে মারধরের বিচারের দাবীতে মানববন্ধন হয়েছে। শনিবার বিকালে উপজেলা পরিষদ এর সামনে মানববন্ধন অনুষ্টিত হয়।
গত ১২ সেপ্টেম্বর ইউনিয়ন পরিষদের একটি কক্ষে আটকে রেখে খাদেম পরিবারের তিন ভাইকে ব্যাপক মারধর করা হয়েছে। এতে তারা গুরুতর আহত হয়। এ ঘটনায় চকরিয়া সিনিয়র জুড়িশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি নালিশি মামলা দায়ের করা হয়। মামলাটি কক্সবাজার পিবিআই তদন্ত করছেন।
মানববন্ধনে বক্তরা বলেন, ২-৩ বছর ধরে হারবাং ইউপি চেয়ারম্যান মিরানুল ইসলাম হারবাং শাহ্ সুফি দরবার শরীফের নিয়ন্ত্রণ হস্তান্তর করার জন্য খাদেম পরিবারকে চাপ দেন। এতে অস্বীকৃতি জানালে এর জের ধরে ২০১৮ সালের ৪মে চেয়ারম্যান তার বাড়িতে ডেকে নিয়ে বয়োবৃদ্ধ খাদেম শাহ ফয়েজ আহমদ ফকির ও চার পুত্রকে মারধর করেন।
যাহা চকরিয়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ২৪৯/২০১৮ইং মামলা চলমান রয়েছে। এই ঘটনার মারধরের কারণে দীর্ঘদিন চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় মারা যান শাহ ফয়েজ আহমদ ফকির।
মানববন্ধনে শাহজাদা মোহাম্মদ আবুল হাশেম অভিযোগ করেন, পিতার মৃৃত্যু হলে মৃত্যু সনদ ও ওয়ারিশ সনদ প্রয়োজন পড়ে তাদের। এগুলো দিতে চান না চেয়ারম্যান। শেষ পর্যন্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দ্বারস্থ হন অসহায় খাদেম ফয়েজ আহমদ ফকিরের পুত্রগণ। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মৃত্যু সনদ ও ওয়ারিশ সনদ দেয়ার নির্দেশ দিলেও চেয়ারম্যান দিতে গড়িমসি করেন এবং মিথ্যার আশ্রয় নেন।
সর্বশেষ গত ১২ সেপ্টেম্বর ইউনিয়ন পরিষদে গেলে তাদের দেখে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন চেয়ারম্যান মিরানুল ইসলাম। একপর্যায়ে আবুল হাশেম, শাহজাহান ও সাজ্জাদ হোসেন সাকিবকে আটক করে কক্ষে ঢুকিয়ে ব্যাপক মারধর করেন। এতে তারা গুরুতর আহত হয়। পেছন থেকে আবুল হাশেম বের হয়ে উপজেলা নির্বাহি অফিসার সৈয়দ শামশুল তাবরীজ ও জাতীয় জরুরী সেবা ৯৯৯ এ ফোন করেন। কিছুক্ষণ পর পরিষদ থেকে মোহাম্মদ শাহজাহান ও সাজ্জাদ হোসেন সাকিবকে পরিষদ থেকে গলা ধাক্কা দিয়ে বের করে দেয়া হয়।
দুইটি মোবাইল সহ গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র সন্ত্রাসী কায়দায় চিনিয়ে নেন। এবিষয় তাৎক্ষণিক চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে একটি অভিযোগ দায়ের করেও কোন প্রতিকার না পাওয়ায়, চকরিয়া বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১০২৪/২০২১ইং মামলা দায়ের করেন, যাহা পিবিআই কক্সবাজার কে তদন্ত প্রতিবেদন দেওয়ার নির্দেশ দেন আদালত। মানববন্ধনে বক্তারা এ বিষয়ে সুষ্টু তদন্তপূর্বক আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রশাসনের নিকট জোর দাবী জানান।
মানববন্ধনে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াত, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট, যুবসেনা, ছাত্রসেনার জেলা ও উপজেলা বিভিন্ন স্থরের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।##