হ্নীলায় ছেলে-মেয়েকে ফিরে পেতে এক পিতার আকুতি

BS.jpg

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি : হ্নীলায় এক মাদক কারবারী বড় বোনের খপ্পরে পড়ে ছোট বোন কারাভোগের সময় স্কুল পড়–য়া নিজ ভাগিনা-ভাগিনীকে কৌশলে অপহরণ করে নিজের নিয়ন্ত্রণে নেওয়ায় এক পিতা পুত্র শোকে কাতর হয়েছে পড়েছে। ছেলে-মেয়েকে ফেরত আনতে চাইলে রোহিঙ্গা উগ্রপন্থী সংগঠনের সন্ত্রাসীদের মাধ্যমে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে বেড়াচ্ছে। ভূক্তভোগী পিতা ছেলে-মেয়েকে ফেরত পাওয়ার জন্য আইন-শৃংখলা বাহিনীসহ সকলের আন্তরিক সহায়তা কামনা করেছেন।

জানা যায়, চলতি বছরের জানুয়ারীর দিকে হ্নীলা দক্ষিণ সিকদার পাড়ার আলমগীরের স্ত্রী সেলিনা (২৫) ঢাকা শ্যামলী হাসপাতালে টিউমারজনিত অপারেশনের কারণে প্রতি ৩মাস অন্তর চেকআপ করতে যেতে হয়। গত ৩মাস পূর্বে যাবতীয় ফাইল নিয়ে চেকআপ করতে যাওয়ার সময় সেলিনার বড় বোন ও মাদক কারবারী মোচনী নয়াপাড়ার মৃত আব্দুল আমিনের স্ত্রী শারমিন কৌশলে সেলিনার সাথে যায়। ঢাকায় যাওয়ার পর মগবাজার ডিবি পুলিশ শারমিনসহ চিকিৎসা নিতে যাওয়া সেলিনাকে আটক করে। কৌশলী মাদক কারবারী শারমিন ফিরে আসলেও চিকিৎসা নিতে যাওয়া সেলিনাকে মাদকসহ কারাগারে পাঠায় ডিবি পুলিশ। এরপর হতে পিতা আলমগীর হ্নীলা প্রি-ক্যাডেট স্কুলে স্ট্যান্ডার্ট-৩ এবং স্ট্যান্ডার্ট-১ পড়ুয়া আঁখি আলমগীর আঁখি ও সাকিবুল হাসান আকিবকে নিয়ে দিন-যাপন করে আসছে।

হঠাৎ করে গত ১১ সেপ্টেম্বর সকাল ১১টারদিকে ছেলে-মেয়েরা প্রাইভেট পড়ার সময় একটি সিএনজি নিয়ে এসে প্রলোভন দেখিয়ে দুই ভাইবোনকে তুলে নিয়ে যায় শারমিন। এই ঘটনার দুইদিন পর ছেলে-মেয়েকে ফেরত আনতে পিতা আলমগীর জেশসের নিকট গেলে ছেলে-মেয়েকে নেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করে। এরপর দাদা নুরুল ইসলাম ভেক্কা নাত-নাতিদের ফেরত আনতে গেলে কৌশলে মোচনী নয়াপাড়া শারমিনের বাড়িতে পাওয়া যায়। কিন্তু শারমিন তাদের ফেরত দিতে অস্বীকার করে।
ছেলে-মেয়েদের আদর বঞ্চিত পিতা আলমগীর তাদের ফেরত আনতে গেলে রোহিঙ্গা উগ্রপন্থী সংগঠনের সদস্যদের দিয়ে প্রাণে মারার হুমকি প্রদান করে। এছাড়াও স্থানীয় প্রভাবশালী লোকজন দিয়ে হুমকি-ধমকি অব্যাহত রেখেছে। এতে অসহায় পিতা আলমগীর নিজ ছেলে-মেয়েদের ফেরত পেতে আইন-শৃংখলা বাহিনী, জনপ্রতিনিধি, সুশীল সমাজসহ হৃদয়বানদের আন্তরিক সহায়তা কামনা করেছেন। ###