হিজবুল্লাহ মহাসচিবের ভাষণ ইসরায়েল সামরিক প্রতিষ্ঠানগুলোর আশা চূর্ণ-বিচূর্ণ

mozahid.jpg

টেকনাফ টুডে ডেস্ক : লেবাননের ইসলামী প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহর মহাসচিব সাইয়্যেদ হাসান নাসরুল্লাহর গতকালের ভাষণের মধ্যদিয়ে ইসরায়েলের রাজনৈতিক ও সামরিক প্রতিষ্ঠানগুলোর সব আশা চূর্ণবিচূর্ণ হয়ে গেছে।

আরবি ভাষার আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম রাই আল ইউমের আজকের সম্পাদকীয়তে এ মন্তব্য করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, লেবাননের আল মানার টেলিভিশন চ্যানেলের ৩০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে হিজবুল্লাহ মহাসচিব সাইয়্যেদ হাসান নাসরুল্লাহ এক ঘণ্টা ১০ মিনিট বক্তব্য রেখেছেন। এ সময় তিনি হাসিখুশি ও ফুরফুরে মেজাজে ছিলেন। তিনি যে পুরোপুরি সুস্থ সে বিষয়টি এ সময় স্পষ্ট ছিল।
পত্রিকাটি আরও লিখেছে,এর আগে দু’টি ভাষণের সময় সাইয়্যেদ হাসান নাসরুল্লাহ মৌসুমি অ্যালার্জিতে ভুগছিলেন। এ কারণে তাকে ভাষণের সময় কাশি দিতে দেখা যায়। ২৫ মের ভাষণে তিনি খুব বেশি কাশি দিচ্ছিলেন। অ্যালার্জি সংক্রান্ত সমস্যার পরও দিবসটির ব্যাপক গুরুত্বের কারণে সেদিন তিনি ভাষণ দেন। ২৫ মে হচ্ছে ইহুদিবাদী ইসরাইলের পরাজয় ও দক্ষিণ লেবানন মুক্ত করার বার্ষিকী।

ইহুদিবাদী ইসরায়েলের পাশাপাশি আরব নেতা ও গণমাধ্যম সব সময় হিজবুল্লাহ নেতা সাইয়্যেদ হাসান নাসরুল্লাহর ভাষণকে ব্যাপক গুরুত্ব দিয়ে থাকে। গতকালের ভাষণের প্রতিও তাদের সবার বিশেষ নজর ছিল। কিন্তু এবার ইহুদিবাদী ইসরায়েল ও তাদের ঘনিষ্ঠ কয়েকজন আরব নেতা হিজবুল্লাহ নেতার শারীরিক অবস্থা দেখে হতাশ হয়েছেন। এর আগের দু’টি ভাষণের পর ইসরায়েল এই বলে প্রচার চালিয়েছিল যে, হিজবুল্লাহ মহাসচিব রোগাক্রান্ত। তারা হাসান নাসরুল্লাহর সম্ভাব্য স্থলাভিষিক্তের নাম নিয়েও আলোচনা শুরু করেছিল। অবশ্য হিজবুল্লাহ বারবারই বলেছে, সাইয়্যেদ নাসরুল্লাহ পুরোপুরি সুস্থ আছেন।