হ্নীলায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বহুতল স্থাপনা নির্মাণ

Teknaf-Pic-A-03-05-21.jpg

সাদ্দাম হোসাইন : হ্নীলা নাটমোরা পাড়ায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে রাতের অন্ধকারে বহুতল ভবন নির্মাণের কাজ শুরু করেছে একটি প্রভাবশালী চক্র। আইনের তোয়াক্কা না করে প্রভাবশালী মহলের এই ধরনের কর্মকান্ডে ভূক্তভোগী পরিবারে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। আইন অমান্যকারীদের দ্রæত আইনের আওতায় আনার জোর দাবী উঠেছে।
জানা যায়,আদালতের এমআর মামলা নং-৯৬৭/২০২১ইং,আদেশ নং-০১,তারিখ-১১-০৪-২১ইং এবং স্মারক নং-১০৯৬/২১/এডিএম/তারিখ-১১-০৪-২১ইং টেকনাফের হ্নীলা নাটমোরা পাড়ার মরহুম আব্দুল জলিল চৌধুরীর ওয়ারিশ মুহাম্মদ কলিম, মোঃ সেলিম চৌধুরী, জসিম উদ্দিন বাদী হয়ে দক্ষিণ হ্নীলা মৌজার আরএস-১৩৮৪,এমআর-১৫০৬,বিএস-৩৫০,দিয়ারা ৪৫৪১নং খতিয়ানের সৃজিত দাগ নং-আরএস-৫৩৬৯, বিএস-৬০৩৯,৬০৪০,দিয়ারা-১২১৯২দাগের আন্দর ১০শতক জমির মালিক। উক্ত জমির কিছু অংশে স্থানীয় মৃত হাজী মোহাম্মদ হাসানের পুত্র শেখ ফরিদুল আলম, মৃত মোঃ কালুর পুত্র ছৈয়দ আলম ও মৃত লালুর পুত্র জাফর আলম মিলে জোরপূর্বক জবর-দখলের চেষ্টা করে।
বাদীপক্ষ নিরুপায় হয়ে আদালতে ১৪৪ ধারা চেয়ে আবেদন করলে প্রথমপক্ষের কাগজপত্র পর্যালোচনা করে ২য়পক্ষকে ৩১মে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশনা প্রদান করেন। এই অনুলিপি টেকনাফ সহকারী কমিশনার (ভূমি) এবং টেকনাফ পুলিশকে প্রেরণ করেন। এরই প্রেক্ষিতে টেকনাফ মডেল থানার এএসআই মোঃ হেলাল উদ্দিন সরেজমিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে উভয়পক্ষকে শান্তি-শৃংখলা বজায় রাখার স্বার্থে আদালতের পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উক্ত বিরোধীয় জমিতে উভয়পক্ষকে কোন ধরনের স্থাপনার কাজ বন্ধ রাখার জন্য নোটিশ জারী করে। উভয়পক্ষকে গত ৩০এপ্রিল বিকাল ৩টায় প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে থানায় হাজির হওয়ার জন্য বলেন। এতে বাদীপক্ষ হাজির হলেও বিবাদী পক্ষ হাজির হয়নি।
অবশেষে ৩রা মে ভোররাত ৩টায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জোরপূর্বক উক্ত জমিতে স্থাপনা নির্মাণের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। বাদীপক্ষ সকালে জানতে পেরে বাঁধা দিলে বিবাদীগং বাদীপক্ষের উপর হামলা চালাতে আসে। তখন বিষয়টি মৌখিকভাবে থানা পুলিশের সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীল কর্মকর্তাকে অবহিত করা হয়।
উল্লেখ্য, এই জমির বিষয় নিয়ে হ্নীলা ইউনিয়ন পরিষদ একাধিবার এবং থানায় একবার সালিশ হওয়ার কথা থাকলেও বিবাদী প্রভাবশালী হওয়ায় আইনের প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করে সালিশ না মেনে পেশীশক্তির দাপটে জবর-দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে। তাই তাদের দ্রæত আইনের আওতায় আনার জোর দাবী জানিয়েছেন ভূক্তভোগী পরিবার। ###