ভারতে অসহায় মানুষ সহায়তা খুঁজছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে

272173_Abul-6.jpg

টেকনাফ টুডে ডেস্ক : ভারতকে দিনের পর দিন করোনা ভাইরাস মহামারি কাবু করে ফেলছে। ২৪ ঘন্টায় সেখানে তিন লাখ ৮০ হাজার মানুষ নতুন করে আক্রান্ত হওয়ায় আতঙ্ক স্নায়ুতে কাঁপন ধরিয়েছে। মানুষ দিশেহারা হয়ে পড়েছে। হাসপাতালে বেড, ওষুধ ও অক্সিজেন সরবরাহে ভয়াবহ এক সঙ্কট সৃষ্টি হয়েছে। এ অবস্থায় বিভিন্ন শহরের মানুষ আশ্রয় নিয়েছেন টুইটারে। করোনার এই ভয়াবহ সময়ে দয়ালু কোনো মানুষও তা দেখে উপকারে এগিয়ে আসছেন। কেউ কেউ টুইটারে শেয়ার করছেন কোথায় গ্যাস সিলিন্ডা পাওয়া যায়। কোথায় সিলিন্ডারে গ্যাস ভরা যায়।
আবার কেউ কেউ রোগীর জরুরি সাহায্যের কথা জানিয়ে পোস্ট দিচ্ছেন। আবার কোনো কোনো পোস্টে জানান দেয়া হচ্ছে, কোন কোন হাসপাতালের বেড ফাঁকা আছে। আবার কেউ কেউ রক্তের প্লাজমা দাতা খুঁজছেন। কিভাবে নিরাপদে থাকা যায়, সে পরামর্শ দিয়ে কেউ কেউ টুইট করছেন। এসওএস কলে টুইটারে সয়লাব। তার মধ্যে একটি পোস্ট এরকম- আর্জেন্ট প্লিজ! রিকোয়ারমেন্ট: দিল্লির হাসপাতালে ভেন্টিলেটর নেই। তাই জরুরিভিত্তিতে ভেন্টিলেটর প্রয়োজন। আরেকটি টুইটে বলা হয়েছে, ৩০ বছর বয়সী একজন রোগীর এসপিও-২ এখন ৫০ এর নিচে। তার স্ত্রী অন্তঃসত্ত্বা। জরুরি ভিত্তিতে গুরুগ্রামের এই রোগীর জন্য আইসিইউ বা ভেন্টিলেটর বেড প্রয়োজন।
যেসব হাসপাতালে স্থান সংকুলান হচ্ছে না তারা এবং স্টাফরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সরবরাহ ও সহায়তা চেয়ে পোস্ট দিচ্ছেন। অনেকে তাদের টুইটারের ইউজার নেম পাল্টে ফেলেছেন। এরপর তথ্য প্রকাশ করছেন। ওদিকে আক্রান্ত ব্যক্তিদের উদ্বিগ্ন বন্ধুবান্ধব, পার্টনার এবং আত্মীয়রা ব্যবহার করছেন ইনস্টাগ্রাম। সেখানে সাহায্য চাইছেন। এতে ধনীগরিব নেই। সবাই যেন এক হয়ে গেছেন। তারা ব্যবহার করছেন হ্যাশট্যাগ কোভিড ইমার্জেন্সি ২০২১ অথবা হ্যাশট্যাগ ইন্ডিয়া নিড অক্সিজেন।