লকডাউনে সব এলোমেলো হয়ে গেছে

mitila.jpg

টেকনাফ টুডে ডেস্ক : ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী রাফিয়াথ রশিদ মিথিলা। ‘অমানুষ’ ছবির সুবাদে পা রাখলেন বড় পর্দায়। অনন্য মামুনের পরিচালনায় এতে তার বিপরীতে আছেন চিত্রনায়ক নিরব। লকডাউনের মধ্যেই বান্দরবান, গাজীপুর ও ঢাকার আশেপাশে ছবির দৃশ্যধারণ করা হয়েছে। কেমন ছিল সিনেমায় কাজ করার অভিজ্ঞতা?

উত্তরে মিথিলা বলেন, ‘সিনেমার শুটিং অনেক বড় পরিসরে হয়। নাটকে মোটামুটি অভিনয়, অভিব্যক্তি বা সংলাপের মাধ্যমে গল্পটা বলে দেওয়া যায়। কিন্তু সিনেমায় সেটা সম্ভব না। ছোট ছোট আবেগ, পারিপার্শ্বিকতা, পরিবেশটাকে বোঝাতে হয়। সিনেমা ও নাটক দুটোই আলাদা।’

তিনি আরও বলেন, ‘সিনেমার প্রয়োজনে আমরা জঙ্গলের ভেতর কাজ করেছি। সেখানেও সেট ডিজাইন করা ছিল। এর গল্পটাই বনজঙ্গলে থ্রিলার ধাঁচের। সুন্দর একটা ইউনিট নিয়ে আমরা কাজ করেছি। তাছাড়া এই সিনেমার মধ্য দিয়ে বহুদিন পর নিরবের সঙ্গে কাজ করলাম।’

সিনেমার বাকি কাজ কবে হবে? জানতে চাইলে মিথিলা বলেন, ‘আমরা লকডাউন ওঠার অপেক্ষায় আছি। এরপর বাকি শুটিং হবে।’

সিনেমায় কি নিয়মিত হওয়ার ইচ্ছে আছে? উত্তরে তিনি বলেন, ‘আমি যেহেতু আগে সিনেমার কাজ করিনি তাই ধারণা ছিল, সিনেমার কাজ বোধহয় মাসের পর মাস করতে হয়। কিন্তু সেভাবে শুটিং হয় না। লোকেশন অনুযায়ী ভেঙে ভেঙে শুটিং হয়। ভালোই লেগেছে। ভালো কাজের প্রস্তাব পেলে সিনেমায় কাজ করতে আপত্তি নেই।’

এবার ঈদের নাটকের খবর বলুন। মিথিলার ভাষ্য, ‘লকডাউনের কারণে সিডিউল জটিলতায় পড়েছি। সিনেমার শুটিং করে ঈদের নাটকের কাজ করার কথা ছিল। কিন্তু লকডাউনের কারণে সব এলোমেলো হয়ে গেছে। এখনো সিনেমার কাজই শেষ করতে পারিনি।’