নর্থ মেসিডোনিয়ার কাছে ঘরের মাঠে ধরাশায়ী জার্মানি

g.jpg

টেকনাফ টুডে ডেস্ক :
প্রথমার্ধে আধিপত্য করেও গোল পেল না জার্মানি। উল্টো হজম করল। দ্বিতীয়ার্ধে ঘুরে দাঁড়ালেও শেষ রক্ষা হয়নি তাদের। বিশ্বকাপ বাছাইয়ে চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের প্রথম হারের তেতো স্বাদ দিয়েছে নর্থ মেসিডোনিয়া।

২০২২ কাতার বিশ্বকাপের ইউরো অঞ্চলের বাছাইয়ের ‘জে’ গ্রুপের ম্যাচে বুধবার রাতে নিজেদের মাঠে ২-১ গোলে হেরেছে ইওয়াখিম লুভের দল। আগের দুই ম্যাচে আইসল্যান্ড ও রোমানিয়ার বিপক্ষে জিতেছিল সবশেষ ২০১৪ সালে বিশ্বকাপ জয়ী জার্মানি।

রোমানিয়ার বিপক্ষে হেরে বাছাই শুরু করা নর্থ মেসিডোনিয়া পেল টানা দ্বিতীয় জয়। লিখটেনস্টাইনকে ৫-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছিল তারা।

শুরু থেকে বলের নিয়ন্ত্রণ ও আক্রমণে আধিপত্য করলেও প্রথমার্ধে সুযোগ কাজে লাগাতে পারেনি জার্মানি। নবম মিনিটে বক্সের বাইরে থেকে লেয়ন গোরেটস্কার শট গোলরক্ষককে ফাঁকি দিলেও বাধা পায় ক্রসবারে।

২৭তম মিনিটে আরেকটি ভালো সুযোগ হারায় জার্মানি। সের্গে জিনাব্রির দুরূহ কোন থেকে নেওয়া শট কোনোমতে পা দিয়ে আটকান গোলরক্ষক দিমিত্রিভস্কি।

পাল্টা জবাব দেওয়ার চেষ্টা করে আগের ম্যাচে বড় জয় পাওয়া নর্থ মেসিডোনিয়া। ৪০তম মিনিটে আলিওস্কির ক্রসে আদেমির হেড দারুণ দক্ষতায় ফেরান মার্ক আন্ড্রে-টের স্টেগেন।

বিরতির ঠিক আগে এগিয়ে যায় নর্থ মেসিডোনিয়া। আলিওস্কির ক্রস প্রথম প্রচেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে নিয়ে গোলমুখে আড়াআড়ি ক্রস বাড়ান বার্ধি আর ছোট বক্সের ভেতর থেকে গোরান পানদেভ সহজ টোকায় জাল খুঁজে নেন। চলতি বাছাইয়ে এই প্রথম গোল হজম করল জার্মানি।

৬৩তম মিনিটে স্পট কিক থেকে জার্মানি শিবিরে সমতার স্বস্তি এনে দেন ইলকাই গিনদোয়ান। ডি-বক্সে সানে ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টির বাঁশি বাজিয়েছিলেন রেফারি।

৮০তম মিনিটে এগিয়ে যাওয়ার সুবর্ণ সুযোগ নষ্ট হয় জার্মানির। জশুয়া কিমিচের থ্রু বল ধরে গিনদোয়ান গোলরক্ষককে একা পেয়েও শট নেননি। আড়াআড়ি ক্রস বাড়ান টিমো ভেরনারের উদ্দেশে। চেলসির এই ফরোয়ার্ড ঠিকঠাক টোকা দিতে পারেননি। বল চলে যায় পোস্টের বাইরে দিয়ে।

উল্টো পাঁচ মিনিট পর ফের গোল হজম করে বসে জার্মানি। দুর্বল কর্নারও বিপদমুক্ত করতে পারেননি ডিফেন্ডাররা। সুযোগে বলের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে আদেমি পাস বাড়ান এলজিফ এলমাসকে। ডি-বক্সের মাঝখানে ফাঁকায় থাকা এই মিডফিল্ডার জোরালো শটে লক্ষ্যভেদ করেন। দারুণ জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে নর্থ মেসিডোনিয়া।

তিন জয়ে ৯ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে রয়েছে আর্মেনিয়া। ৬ করে পয়েন্ট নিয়ে গোল পার্থক্যে দ্বিতীয় স্থানে উঠেছে নর্থ মেসিডোনিয়া; তৃতীয় স্থানে জার্মানি।