বিশ্বকাপ বাছাই পর্ব ; পর্তুগালের জয়

R-3.jpg

টেকনাফ টুডে ডেস্ক : পিছিয়ে পড়ার ধাক্কা সামলে পর্তুগাল ঘুরে দাঁড়াল দুর্দান্তভাবে। একের পর এক আক্রমণে ব্যতিব্যস্ত করে তুলল লুক্সেমবার্গকে। দলটিকে উড়িয়ে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে দ্বিতীয় জয় পেল ফের্নান্দো সান্তোসের দল।

লুক্সেমবার্গের জাতীয় স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার রাতে ‘এ’ গ্রুপের ম্যাচে ৩-১ গোলে জিতেছে পর্তুগাল। গেরসন রদ্রিগেস স্বাগতিকদের এগিয়ে নেওয়ার পর সমতা টানেন দিয়োগো জোতা। পরে ব্যবধান বাড়ান ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো ও জোয়াও পালিনিয়া।

আজারবাইজানের বিপক্ষে তাদের আত্মঘাতী গোলে জিতে বাছাইপর্ব শুরু করা পর্তুগাল পরের ম্যাচে সার্বিয়ার বিপক্ষে দুই গোলে এগিয়ে গিয়েও ২-২ ড্র করে। ওই ম্যাচের শেষ দিকে বল গোললাইন পেরিয়ে গেলেও রেফারি গোল না দেওয়ায় রোনালদোর ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখানো, শেষ বাঁশি বাজার আগে আর্ম ব্যান্ড ছুড়ে মাঠ থেকে বেরিয়ে যাওয়া, ভিএআর না থাকায় পর্তুগাল কোচের অসন্তোষ প্রকাশ, এরপর উয়েফার বিবৃতি-সব মিলিয়ে আলোচনা-সমালোচনা হয় অনেক।

লুক্সেমবার্গের বিপক্ষে এই পারফরম্যান্স নিশ্চিতভাবে রোনালদোদের সামনের পথচলায় বাড়তি আত্মবিশ্বাস জোগাবে। পুরো ম্যাচে তারা গোলের উদ্দেশে শট নেয় ২০টি, এর ১১টি ছিল লক্ষ্যে। প্রতিপক্ষ গোলরক্ষক আর ক্রসবারের বাধার পাশাপাশি নিজেরা সুযোগ নষ্ট না করলে ব্যবধান আরও বাড়তে পারতো।

বল দখলে পর্তুগাল এগিয়ে থাকলেও শুরুর দিকে আক্রমণে তেমন একটা সুবিধা করতে পারছিল না তারা। ২৪তম মিনিটে গোলের উদ্দেশে প্রথম শট নিতে পারে দলটি। দুরূহ কোণ থেকে রোনালদোর ফ্রি কিক সহজেই ফেরান স্বাগতিক গোলরক্ষক মরিস। চার মিনিট পর জোয়াও কানসেলোর পাসে রেনাতো সানচেসের নিচু শট ঠেকিয়ে জাল অক্ষত রাখেন তিনি।

পরের মিনিটেই ২০১৬ সালের ইউরো চ্যাম্পিয়নদের চমকে দিয়ে এগিয়ে যায় লুক্সেমবার্গ। সতীর্থের ক্রসে ডি-বক্সে দারুণ ডাইভিং হেডে বল জালে পাঠান ফরোয়ার্ড রদ্রিগেস।

প্রথমার্ধের শেষ কয়েক মিনিটে স্বাগতিকদের রক্ষণে চাপ বাড়ায় পর্তুগাল। ৪৩তম মিনিটে ডি-বক্সের বাইরে থেকে সানচেসের শট এক হাতে ক্রসবারের ওপর দিয়ে পাঠান মরিস। এক মিনিট পর ভালো সুযোগ হাতছাড়া করেন রোনালদো। মেন্দেসের ক্রস ছয় গজ বক্সের মুখে পেয়ে ঠিকমতো হেড করতে পারেননি ইউভেন্তুস ফরোয়ার্ড।

অবশেষে বিরতির খানিক আগে সমতায় ফেরে সফরকারীরা। একটু আগে চোট নিয়ে মাঠ ছাড়া জোয়াও ফেলিক্সের বদলি নামা পেদ্রো নেতো ডি-বক্সের বাঁ দিকে একজনকে কাটিয়ে ক্রস বাড়ান। ছয় গজ বক্সে লাফিয়ে হেডে ঠিকানা খুঁজে নেন লিভারপুল ফরোয়ার্ড জোতা।

দ্বিতীয়ার্ধের পঞ্চম মিনিটে দলকে এগিয়ে নেন রোনালদো। ডান দিক থেকে কানসেলোর ক্রসে ছয় গজ বক্সের সামনে একটু লাফিয়ে নেওয়া ভলিতে জাল খুঁজে নেন পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার।

জাতীয় দলের হয়ে রোনালদোর গোল হলো ১০৩টি। আন্তর্জাতিক ফুটবলে ইরানের আলি দাইয়ের সবচেয়ে বেশি ১০৯ গোলের রেকর্ড ছোঁয়ার পথে আরেক ধাপ এগিয়ে গেলেন ৩৬ বছর বয়সী ফুটবলার।

দুই মিনিট পর বাড়তে পারতো ব্যবধান। মেন্দেসের নিচু শট বাঁ দিকে ঝাঁপিয়ে দারুণ দক্ষতায় ফেরান গোলরক্ষক। ৫৯তম মিনিটে জোতার হেড ক্রসবারে লাগে।

৭৮তম মিনিটে সহজ সুযোগ নষ্ট করেন রোনালদো। সতীর্থের পাস ফাঁকায় পান তিনি। সামনে একমাত্র বাধা গোলরক্ষক। কিন্তু গোলরক্ষক বরাবর শট মারেন রোনালদো। পরে তিনি বল জালে পাঠালেও অফসাইডের কারণে গোল মেলেনি।

৮০তম মিনিটে স্কোরলাইন ৩-১ করেন দ্বিতীয়ার্ধে বদলি নামা পালিনিয়া। নেতোর কর্নারে কাছ থেকে হেডে জাতীয় দলের হয়ে নিজের প্রথম গোলটি করেন তিনি। নির্ধারিত সময়ের চার মিনিট বাকি থাকতে সানচেসকে ফাউল করে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন স্বাগতিক ডিফেন্ডার মাক্সিম।

তিন ম্যাচে দুই জয় ও এক ড্রয়ে ৭ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে আছে পর্তুগাল। অন্য ম্যাচে আজারবাইজানকে ২-১ গোলে হারানো সার্বিয়া সমান পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে আছে।

দুই ম্যাচে লুক্সেমবার্গের ৩ পয়েন্ট। সমান ম্যাচে রিপাবলিক অব আয়ারল্যান্ড ও আজারবাইজান এখনও পয়েন্টের খাতা খুলতে পারেনি।

‘ই’ গ্রুপের ম্যাচে বেলারুশকে ৮-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ দল বেলজিয়াম। ‘জি’ গ্রুপে জিব্রাল্টারকে ৭-০ গোলে হারিয়েছে নেদারল্যান্ডস।