৯৯৯-এ ফোন করে সেন্টমার্টিন পর্যটন রোডে আটকা পড়া তরুণীসহ ১৫ পর্যটক উদ্ধার

ship.jpg

মোঃ আব্দুল্লাহ মনির : সেন্টমার্টিন ছেঁড়াদ্বীপে ভ্রমণে এসে বঙ্গোপসাগরে আটকা পড়া তিন তরুণীসহ ১৫ পর্যটককে ৯৯৯-এ ফোনের মাধ্যমে উদ্ধার করেছেন বাংলাদেশ কোস্টগার্ড সদস্যরা। এর আগে বিকল নৌযান থেকে মো. আব্দুল্লাহ নামে এক পর্যটক জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯-এ ফোন করে উদ্ধার সহায়তা চান। এরপর পরই সেন্টমাটিন কোস্ট গার্ড সদস্যরা তাদের উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।
আজ শুক্রবার বিকেলে বঙ্গোপসাগরে আটকা পড়া পর্যটকদের উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কোস্টগার্ড সেন্টমার্টিন স্টেশন কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট কমান্ডার সাদ মোহাম্মদ তাইম। তিনি বলেন, ‘বৃহস্পতিবার দুপুরে একদল পর্যটক সেন্টমার্টিন থেকে একটি ইঞ্জিনচালিত নৌযানযোগে ছেড়া দ্বীপ ভ্রমণের উদ্দেশে রওনা দিয়েছিলেন। কিন্তু ছেড়া দ্বীপের কাছাকাছি বঙ্গোপসাগরের একটি স্থানে তাদের নৌযানের ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়।’
তিনি বলেন, ‘নৌযানের মাঝি প্রায় ঘণ্টাখানেক চেষ্টা করেও ইঞ্জিন সচল করতে পারেননি। এই অবস্থায় সাগরে বিকল নৌযানে অবস্থিত পর্যটকরা ভীত ও শঙ্কিত হয়ে পড়েন। পরে পর্যটকরা জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯-এ ফোন করে উদ্ধার সহায়তা চান। এরপর তাদের অবস্থান চিহ্নিত করে টহলরত কোস্টগার্ডের সদস্যরা তাদের উদ্ধার করে দ্বীপে নিয়ে আসেন। সেখানে তিনজন নারী ছিলেন।’
কোস্টগার্ডের এই কর্মকর্তা জানান, ৯৯৯-এ ফোনের মাধ্যমে পর্যটকদের অনুরোধে তাদের উদ্ধার করা হয়েছে। এসব পর্যটক বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ছিলেন। পরে উদ্ধার হওয়া পর্যটকরা কোস্টগার্ডকে ধন্যবাদ জানান এবং লিখিতভাবে কোস্টগার্ডকে একটি প্রশংসাপত্র দেন।