হুইল চেয়ারে হাসপাতাল ছেড়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

m-6.jpg

টেকনাফ টুডে ডেস্ক : ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শুক্রবার সন্ধ্যায় হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার এ তথ্য জানায়।

আনন্দবাজার জানায়, শুক্রবার সন্ধ্যায় তৃণমূল কংগ্রেস প্রধান হুইলচেয়ারে করে এসএসকেএম হাসপাতাল থেকে বের হন। সেখান থেকে তিনি তার বাসভবনে পৌছেছেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, মেডিকেল বোর্ড তাকে ৪৮ ঘণ্টা পর্যবেক্ষণের পরামর্শ দিয়েছে। তৃণমূল নেতাদের অনুরোধে কর্তৃপক্ষ মমতাকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এসময় তারা প্রয়োজনীয় সতর্কতা অবলম্বন করে। সূত্রের খবর অনুযায়ী, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চিকিৎসায় ভাল সাড়া দিয়েছেন এবং তাকে কিছু বিধিনিষেধ মেনে চলার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

শুক্রবার এক ভিডিও বার্তায় মমতা বললেন, ‘সকলে শান্ত থাকুন, মানুষের সমস্যা হয় এমন কিছু করবেন না। কাল খুব জোর লেগেছিল। আমি আশা করছি, কয়েক দিনের মধ্যেই আবার মাঠে নামতে পারব, প্রচারে বের হব। তবে হুইল চেয়ারে ঘুরতে হতে পারে। সেটা সকলে সহযোগিতা করলে সম্ভব হয়ে যাবে।’

হাসপাতালের বরাত দিয়ে এই সময় জানিয়েছে, মমতার বাঁ-পায়ে ব্যথা রয়েছে। রেডিওলজিক্যাল ইনভেস্টিগেশন করা হচ্ছে। তার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল। সোডিয়ামের মাত্রা কম।

বুধবার নন্দীগ্রামের রেয়াপাড়ায় একটি মন্দিরে পূজা দিয়ে বের হওয়ার সময় চার-পাঁচজন মমতাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয় বলে অভিযোগ। এ ঘটনার পর নির্বাচনী প্রচার কর্মসূচি মাঝপথে বন্ধ করে মমতাকে কলকাতায় ফিরিয়ে নেওয়া হয়।

কলকাতায় ফেরার পথে রাস্তায় সাংবাদিকরা মমতার গাড়ি থামালে তিনি বলেন, ‘ভিড়ের মধ্যে ৪-৫ জন বাইরে থেকে ঢুকে পড়েছিল। ধাক্কা মেরে ফেলে দেয় আমাকে। ইচ্ছাকৃতভাবে ধাক্কা মারা হয়। এর পেছনে ষড়যন্ত্র ছিল।’