টৈটং ইউপি নির্বাচনে নৌকা পেতে মরিয়া চাল চুরির অভিযোগে বহিস্কৃত জাহেদ চৌধুরী

Chakaria-Pc-Zahed-Chy-06-03-2021.jpg

নিজস্ব প্রতিবেদক : পেকুয়া উপজেলার টৈটং ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের নৌকা প্রতীক পেতে মরিয়া হয়ে দৌডঝাপ রয়েছেন চাল চুরির অভিযোেেগ আওয়ামীলীগ ও চেয়ারম্যান পদ হতে বহিস্কৃত জাহেদুল ইসলাম চৌধুরী। এমনটি অভিযোগ করেছেন পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সাবেক চেয়ারম্যান শহীদুল­াহ বিএ। ।
ইতোমধ্যে শূন্য হওয়া পেকুয়ার টৈটং ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তপসীল ঘোষনা করেছেন নির্বাচন কমিশন। আগামী ১১ এপ্রিল নির্বাচন। তারই আলোকে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে লড়তে দৌডঝাপে রয়েছেন অনেক রাজনৈতিক ও সমাজকর্মীরা। বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহন না করার ঘোষনা করায় এককভাবে প্রভাব বিস্তার করে পূনরায় চেয়ারম্যান হওয়ার প্রত্যাশায় বহিস্কৃত চেয়ারম্যান জাহেদ চৌধুরী জেলা ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র নেতৃবৃন্দের মাঝে ধর্না দিচ্ছেন বলে তৃনমুল কর্মীর অভিযোগ। ।
গত বছরে জুলাই মাসে করোনা ভাইরাসের কারনে কর্মহীন মানুষের সরকারী দেওয়া ত্রান চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম চৌধুরী বিতরন না করে নিজেই লুটপাট করার অভিযোগ উঠে। তৎ সময়ে জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শাহ জাহান আলী সরেজমিন তদন্তে চাল চুরির অভিযোটি প্রমানিত হওয়ায় সাবেক জেলা প্রশাসক কামাল হোসেনের নির্দেশে পেকুয়া উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম বাদী হয়ে টৈটং ইউপির চেয়ারম্যান ও টৈটং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহেদুল ইসলাম চৌধুরীর বিরুদ্ধে সরকারী ত্রান চুরি করে বিক্রির অভিযোগে পেকুয়া থানায় মামলা দায়ের করে। মামলার কারনে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জননেতা ওবায়দুল কাদেরের নির্দেশে জেলা আওয়ামীলীগের তৎকালীন সভাপতি এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা ও সাধারন সম্পাদক মুজিবুর রহমান মেয়র অভিযুক্ত জাহেদুল ইসলাম চৌধুরীকে টেটং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক পদ হতে বহিষ্কার করেন যা আজ পর্যন্ত বলবৎ আছে। অন্যদিকে স্হানীয় সরকার মন্ত্রনালয় ও টৈটং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদ হতে স্হায়ীভাবে বহিষ্কার করেন ফলে চেয়ারম্যান পদটি শূন্য ঘোষণা করে নির্বাচনের নির্দেশনা দেন স্হানীয় সরকার মন্ত্রনালয়। দীর্ঘ আটমাস পরে সেই কাঙ্খিত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১১ এপ্রিল।
দল ও সরকার হতে বহিস্কৃত আলোচিত সমালোচিত জাহেদ চৌধুরী নৌকা প্রতীক পেতে মরিয়া হয়ে জেলা ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র নেতৃবৃন্দের মাঝে ধর্না দিচ্ছে। তাকে দল নৌকা প্রতীক দিলে আওয়ামীলীগের চরম মান ক্ষুন্ন হবে বলে জানিয়েছেন পেকুয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জুবাইদুল­াহ লিটন। চেয়ারম্যান থাকাকালে দলের প্রভাব কাটিয়ে নিরীহ জনগনের জমি দখল, পাহাড দখল, চাদাবাজী সহ নানা অপকর্মে জডিয়ে যান এবং টৈটং এলাকায় রাজ রাজত্ব কায়েম করেন জাহেদ চৌধুরী। টৈটং পাহাডী জনপদ হওয়ার সুযোগে বাহিনীর জন্ম দিয়ে প্রায় ১০০ঃ একর সরকারী বনভূমি জবর দখলে নিয়েছে।
। তার এসব অনিয়মের বিরুদ্ধে প্রতিবাদকারীদের বন্দী করে মারধর করার ও অভিযোগ রয়েছে। দাম বাহিনী, বোরকা বাহিনীর নেতৃত্ব নিরব চাদাবাজী করা তার পেশায় পরিনত হয়। সমাজিক বনায়ন বরাদ্দ নিরীহ দের নাম কেটে ধনীদের নাম তালিকাভুক্ত করে বহু টাকা বানিজ্য করে কোটি টাকা হাতিয়ে নেন। গত ইউপি নির্বাচনের তার প্রতিদ্বন্দ্বী চেয়ারম্যান প্রার্থী পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সাবেক চেয়ারম্যান শহিদুল­াহ বিএ কে দিনদুুপুরে নির্বাচনের আগের দিন অস্ত্রের মুখে অপহরন করে পাহাডের তার বাংলো অস্ত্রের মুখে বন্দী করে রাখেন। যার কারনে শহীদুল­াহর স্ত্রী জাহেদ চৌধুরী ও জনৈক সন্ত্রাসীর বিরুদ্ধে পেকুয়া থানায় অপহরণ মামলা রুজু করেন। পরবতী জাহেদ চৌধুরী ঐ মামলাটি আপোষ করতে বাধ্য করে শহীদুল­াহ্।
বর্তমানে নৌকা প্রতীকের প্রত্যাশী চেয়ারম্যান প্রার্থী শহীদুল­াহ্ বিএ, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জুবাইদুল­াহ লিটন, মেহেদী হাসান ফরায়জী, মাস্টার জামাল হোসেন, বলেন, সেই পূর্বের ন্যায় টৈটং জনপদে আবারও আতংক ও ত্রাস সৃষ্টিন আলামত পাচ্ছি। সুতরাং প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।
গত জোট সরকার আমলে মিথ্যা মামলায় কারান্তরীন হয়েছিলেন এই জুবাইদুল­াহ লিটন। এমনি তাকে সাজা ও দিয়েছিলেন তৎ সময়ের রাজনৈতিক আদলত তিনি দীর্ঘ সময় জাহেদ চৌধুরীর রোষানলে শিকার বলে জানান।
তিনি আরো বলেন জাহেদ চৌধুরী দল কে ডুবিয়েছেন এবং দলের নাম ভাঙ্গিয়ে সাধারন জনগনকে হয়রানি করে অর্থ আদায় করে দলের ইজ্জতের চরম ক্ষতি করেছেন। দল তাকে আবার মনোনয়ন দিলে দলের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হবে।
পাহাড দখল, জমি দখল,বিচার আর ভিজিডি ব্যবসা সহ অনেক অনিয়ম করেছেন বিধায় আজ দল তাকে বহিষ্কার করেছেন সুতরাং বহিস্কৃত নেতা মনোনয়ন পাবে না এটা সকলের নিশ্চত।
বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতীক পাওয়ার জন্য টৈটং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ তার বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছে।
এ বিষয়ে পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক আবু হেনা মোস্তফা কামাল চৌধুরী জানিয়েছেন গঠন্তন্ত্রের আলোকে মাননীয় নেত্রীর নির্দেশনা মোতাবেক দলীয় প্রার্থী বাচাইয়া করা হবে এতে কোন অনিয়ম করা হবে না। জাহেদ চৌধুরী এখনো দলের বহিস্কৃত সুতরাং গঠনতন্ত্র মোতাবেক পদক্ষেপ গ্রহন করা হবে। ##