কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ কর্তৃক নির্মিত লালদিঘী মসজিদ এর শুভ উদ্বোধন এবং ২৬ জন মুচিকে স্থায়ী দোকান উপহার

129012541_207203240897857_5672993231340009249_n.jpg

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি : ৪ ডিসেম্বর, ২০২০ তারিখ কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ কর্তৃক নির্মিত লালদিঘীর পশ্চিম পাড়ের মসজিদের শুভ উদ্বোধন করা হয়। তাছাড়া উক্ত মসজিদ সংলগ্ন ২৬ জন মুচিকে স্থায়ী দোকান উপহার দিলো কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ। লাল দিঘির উন্নয়ন ও সৌন্দর্য্য বর্ধন প্রকল্পের জন্য আওতায় উপকারভোগী হিসেবে স্থায়ী দোকান উপহার দেয়া হয়েছে তাদের। শুক্রবার জুমার পর কউক কর্তৃক নির্মিত উক্ত মসজিদের শুভ উদ্বোধন করা হয় এবং এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মুচিদের জন্য নির্মিত ২৬টি দোকান হস্তান্তর করা হয়।

কক্সবাজার পৌরসভার প্যানেল মেয়র মাহবুবুর রহমান চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান লে. কর্ণেল (অব.) ফোরকান আহমদ।

বিশেষ অতিথি ছিলেন, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) এডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী, কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান, কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের উন্নয়ন প্রকল্প (পিডি) কর্মকর্তা লে. কর্ণেল আনোয়ারুল ইসলাম, সচিব আবু জাফর রাশেদ।

কউক সূত্রে জানা গেছে, লালদিঘীর পশ্চিম পাড়ের মসজিদটি জরাজীর্ণ অবস্থায় ছিল। তাই কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ স্ব-অর্থায়নে নান্দনিকভাবে উক্ত মসজিদ নির্মাণ করে দেয়া হয়। পাশাপাশি লালদিঘির পশ্চিম পাশে বহু বছর ধরে ঝুপড়িতে জুতা সেলাইয়ের কাজ করে আসছিলো মুচিরা। লালদিঘির উন্নয়ন ও সৌন্দর্য্য বর্ধনে মুচিদের অপসারণ করেই উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেয় কউক। এর অংশ হিসেবে পুকুর পাড়ের নির্মিত উন্নয়ন ও সৌন্দর্য্য বর্ধন স্থাপনায় মুচিদের জন্য দোকান রেখেই বিশেষ নকশা প্রণয়ন করা হয়। সে মোতাবেক ওইখানে থাকা ২৬জন স্থায়ী মুচির জন্য ২৬টি পাকা ও সুদৃশ্য দোকান তৈরি করা হয়। তাদের হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে দোকানগুলো হস্তান্তর করা হয়েছে।