পেকুয়ায় সড়কের গাছ কাটা নিয়ে হাতাহাতি এক ব্যক্তিকে অন্ডকোষ চেপে হত্যা!

Chakaria-Picture-11-09-2020-Pakua.jpg

এম.জিয়াবুল হক : পেকুয়ায় সড়কের পাশে গাছের ঢালপালা (লাকড়ি) কাটা নিয়ে বাকবিতন্ডার জের ধরে মোক্তার আহমদ (৪৮) নামে এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে ও অন্ডকোষ চেপে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুক্রবার (১১ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার বারবাকিয়া ইউনিয়নের কাদিমাকাটা এলাকায় ঘটেছে এ ঘটনা। নিহত মোক্তার আহমদ ওই এলাকার ছৈয়দ নুর সওদাগরের ছেলে। ঘটনার পরপরই পেকুয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে নিহত মোক্তার আহামদের লাশ উদ্ধার করেন। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ মোহাম্মদ রশিদ ও তার মেয়ে উর্মি আক্তারকে গ্রেফতার করেছে।
পেকুয়া থানা পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানায়, শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে বারবাকিয়া ইউনিয়নের কাদিমাকাটা এলাকায় সড়কের পাশে একটি গাছ থেকে ঢালপালা (লাকড়ি) কাটতে যান মোক্তার আহমদ। পরে তিনি গাছ কাটা শুরু করলে একই এলাকার মোহাম্মদ রশিদ নামের অপর এক ব্যক্তি ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে তাকে সড়কের গাছ না কাটার জন্য অনুরোধ করেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গাছ কাটার বিষয়টি নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে ওইসময় বাকবিতন্ডা পরবর্তী হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এক পর্যায়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন মোহাম্মদ রশিদের মেয়ে উর্মি আক্তার। হাতাহাতির একপর্যায়ে মোহাম্মদ রশিদ গাছের ঢালপালা কাটতে যাওয়া মোক্তার আহমদকে দা দিয়ে পায়ের মধ্যে কুপ দিলে তাৎক্ষনাত তিনি মাটিতে লুটে পড়েন। এ সময় তার মেয়ে উর্মি আক্তার অন্ডকোষ চেপে ধরলে ঘটনাস্থলেই অজ্ঞান হয়ে মৃত্যকুলে ঢলে পড়েন মোক্তার আহমদ।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন পেকুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.কামরুল আজম। তিনি বলেন, উপজেলার বারবাকিয়া ইউনিয়নের কাদিমাকাটা এলাকায় সড়কের পাশ থেকে মোক্তার আহমদ নামের এক ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। লোকেমুখে শোনা গেছে সড়কের পাশের গাছ কাটাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হাতে খুন হয়েছেন তিনি।
ওসি বলেন, ঘটনাস্থলে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরী শেষে নিহতের লাশ ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে মোহাম্মদ রশিদ ও তার মেয়ে উর্মি আক্তারসহ দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। #