বাহারছড়ায় ৮০হাজার মিটার কারেন্ট জাল পুড়ানোসহ ৭শ কেজি সামুদ্রিক মাছ জব্দ

106477067_1467833103400447_540129883265058622_n.jpg

আজিজ উল্লাহ:বঙ্গোপসাগরে মৎস্য প্রজনন মৌসুমে সমুদ্রে মাছ ধরার উপর ৬৫ দিন নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে মৎস্য অধিদপ্তর।যা গত ২০ মে থেকে শুরু হয়ে এই মাসের ২৩ জুলাই পর্যন্ত বলবৎ থাকবে।এরই মধ্যে প্রশাসনের কড়া নজরদারিতেও সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মাছ ধরতে যাওয়ায় টেকনাফ বাহারছড়া জিসি আউটপোস্ট কোস্ট গার্ডদের কান্টিনজেন কমান্ডার এরশাদুল ইসলামের নেতৃত্বে বাহার ছড়ারকোস্ট গার্ড অভিযান চালিয়ে বাহারছড়ার বিভিন্ন মৎস্যঘাট থেকে বিপুল পরিমাণ কারেন্ট জাল ও সামুদ্রিক মাছ জব্দ করা হয়েছে।

কোস্ট গার্ড সূত্রে জানা যায়, বুধবার (৮জুলাই) সকাল ৯.০০ টার দিকে নৌকা নামার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন নৌকার ঘাট থেকে প্রায় ৭শ কেজি সামুদ্রিক মাছ জব্দ এবং ৮০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল পুড়িয়ে ফেলা হয়।পুড়ানো জালের আনুমানিক মূল্য প্রায় ২৮ লাখ টাকা।এসময় সকল মৎস্যজীবী কোস্ট গার্ডদের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে গেলে কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি পরে জব্দকৃত মাছ স্থানীয় এতিমখানা ও গরীব অসহায় মানুষের মধ্যে বিলিয়ে দেওয়া হয়েছে।

বাহারছড়া জিসি আউট পোস্টের কমান্ডার এরশাদুল ইসলাম জানান,৬৫ দিন সাগরে মাছ ধরার উপর সরকার যে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করছে তা বাস্তবান করতে তাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে।কেহ নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সাগরে মাছ ধরতে গেলে উর্ধ্বতন কর্মকতার আদেশক্রমে জাল জব্দ করাসহ
বিভিন্ন আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান।

উল্লেখ্য,যা গত ২০ মে থেকে শুরু হয়ে এই মাসের ২৩ জুলাই পর্যন্ত বলবৎ থাকবে।এদিকে টেকনাফ উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেনের বরাতে জানা যায় এই বন্ধের সময়ে কার্ডধারী তালিকাভুক্ত ৭হাজার ৮৬০ জেলে পরিবারের মধ্যে ৪৪০.১৬০ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হচ্ছে।