করোনা আতঙ্ক : উখিয়ায় জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে সেনা টহল

8435_me.jpg

কায়সার হামিদ মানিক : বিশ্বব্যাপী আতঙ্ক সৃষ্টি করা প্রাণঘাতি ভাইরাসের নাম করোনা। প্রথমে চীনের উহান প্রদেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৩ সহস্রাধিক লোকজন মারা যায়। পরে বিশ্বের ১৯৭টি দেশে এ ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে। দিন দিন মৃত্যুর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে। ফলে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে জরুরী অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে এ মহামারীতে। বর্তমানে ইতালিতে করোনা ভাইরাসে সর্বোচ্চ মৃত সংখ্যা প্রায় ৬হাজার।
সারাবিশ্বের ন্যায় বাংলাদেশেও করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। বাংলাদেশে আক্রান্ত সংখ্যা-৪৪ জন, সুস্থ হয়েছে ঘরে ফিরেছে ১১জন, মারা গেছে ৫জন। অবস্থার অবনতি বিবেচনায় প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা হিসেবে সম্প্রতি সারাদেশে সেনাবাহিনী মাঠে নামানো হয়েছে।
তারই ধারাবাহিকতায় কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলায়ও সেনা টহল জোরদার করা হয়েছে। জনসাধারণকে সচেতন করতে নিয়মিত টহল অব্যাহত রেখেছে সেনাবাহিনী। লকডাউন ঘোষণার দ্বিতীয় দিনে গণপরিরহণও বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। জরুরী ছাড়া কোনো প্রকার পরিবহণ চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে সরকার।
বৃহস্পতিবার সকালে উখিয়া উপজেলার ব্যস্ততম স্টেশন কোটবাজার সরেজমিন দেখা যায়, সেনা টহল জোরদারের ফলে জনসাধারণ সচেতন হতে শুরু করেছে। লকডাউনে রয়েছে শপিংমলগুলোও। সেনাবাহিনী হ্যান্ড মাইকিং করেও জনসাধারণকে সচেতন করতে লক্ষ্য করা গেছে। তবে জনসচেতনতা বৃদ্ধি এবং জনসাধারণের বাড়িতে অবস্থান নিশ্চিতে সেনাবাহিনীর নিয়মিত টহল অব্যাহত রয়েছে।
উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নিকারুজ্জামান চৌধুরী বলেন, করোনা সংক্রামক রোধে সচেতনতা সৃষ্টি করতে উখিয়ার বিভিন্ন স্টেশনে মাইকিং, লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়া সারাদেশের ন্যায় উখিয়ায় লকডাউন অবস্থায় সার্বক্ষণিক সেনাসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর টহল অব্যাহত রয়েছে বলেও তিনি জানিয়েছেন।