শহরে আজম খান স্মরণে কনসার্টে মাতলো হাজারো দর্শক

c-8.jpg

এম.এ আজিজ রাসেল : পর্যটন নগরী কক্সবাজার শহরে বীর মুক্তিযোদ্ধা দেশের পপ ও ব্যান্ড সঙ্গীতের অগ্রপথিক আজম খান স্মরণে অনুষ্ঠিত হয়। বৃহস্পতিবার জেলা প্রশাসনের সহযোগিতা ও অরিজিন অফ ইনার গোলস্ (ওআইজি) ব্যান্ড গ্রæপ আয়োজিত কনসার্টে মাতলো হাজার হাজার গানপ্রিয় মানুষ। বিশেষ করে গুরু আজম খানের গান শুনতে ছোট-বড় সবাই বিকাল থেকে জড়ো হতে থাকে পাবলিক লাইব্রেরীর শহীদ দৌলত ময়দানে। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় শুরু হয় কনসার্টের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচীব কবির বিন আনোয়ার। বক্তব্য রাখেন ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক আশরাফুল আফসার। বক্তারা বলেন, এমন উদ্যোগ সত্যিই প্রশংসনীয়। দেশের একজন বীর সেনানীকে সম্মানিত করা। আজম খান আজীবন দেশ মাতৃকার জন্য গেয়েছেন। তার গানগুলো আজীবন এই দেশের মানুষের হৃদয়ের মণিকোঠায় গেঁথে থাকবে। সাংস্কৃতিক জাগরণে এমন আয়োজন অব্যাহত রাখা দরকার।
সাউন্ডের মধুর আওয়াজ ও সুরের মুর্ছনা শহরময় ছড়িয়ে যায়। নান্দনিক লাইটিংয়ের আলোয় ছুঁয়ে যায় আকাশ। সেই সাথে বাড়তে থাকে দর্শকদের সংখ্যা। ওআইজি’র প্রধান সমন্বয়ক সাংবাদিক জাহেদ সরওয়ার সোহেল এর অনবদ্য পরিচালনায় কনসার্টে শিল্পীদের কণ্ঠে একের পর এক ভেসে আসে আজম খানের সেই চির সবুজ গানগুলো। নিজেও গেয়ে দর্শকদের প্রায় ৭০-৮০ দশকের সেই স্বর্ণযুগে নিয়ে গেছেন তরুণ সাংবাদিকদের আইডল জাহেদ সরওয়ার সোহেল। তার সাথে কক্সবাজারের সঙ্গীত জগতের আরেক উজ্জ্বল নক্ষত্র জাবেদ সমানতালে গেয়েছেন প্রিয় শিল্পীর গান। তাদের সাথে কণ্ঠ ও বাজিয়েছেন শিল্পী আকবর, হাসান, রাকিব, আপন, জাহেদসহ দলের সবাই। বলতে গেলে এই বিরাট কনসার্টের মাধ্যমে অরিজিন অফ ইনার গোলস্ (ওআইজি) এর চমৎকার আত্মপ্রকাশ ঘটেছে। এখানকার শিল্পীদের অবলীল কণ্ঠে গুরু আজম খানের অভিমানী, আলাল ও দুলাল, বাংলাদেশ, কেউ নাই আমার, আর দেখো না, ব্যস্ত ভবঘুরে, আর গাইবোনা গান, থাকবো না যেদিন, মাটির পৃথিবীতে, ওরে সালেকা ওরে মালেকা বিখ্যাত গানগুলো দর্শকদের হৃদয় ছুঁয়ে যায়। রাত সাড়ে ১০টায় কনসার্টের সমাপ্তিতে দর্শকদের মন যেন খারাপ হয়ে যায়। দর্শকদের চাহিদা ছিল প্রিয় শিল্পী আজম খানের গানে গানে নিজেদের আরও হারিয়ে ফেলার।