porno izle sex hikaye
corum surucu kursu malatya reklam

সাংবাদিক পরিচয়ে নারীর ইয়াবা ব্যবসা

rumana_jessore.jpg

টেকনাফ টুডে ডেস্ক : যশোরে মোটরসাইকেল হাঁকিয়ে কখনো সাংবাদিক, আবার কখনো পুলিশ পরিচয়ে প্রতারণা ও মাদক বিক্রির অভিযোগে চার সহযোগীসহ রেহেনা ওরফে লিপি (২৫) নামে এক নারীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ সময় তার সহযোগীদের কাছ থেকে দুটি ওয়াকিটকি সেট উদ্ধার করা হয়েছে।

গতকাল বুধবার বিকেলে যশোর জিলা স্কুলের সামনে থেকে তাদের গ্রেপ্তার করে কোতোয়ালি থানা পুলিশ। গ্রেপ্তার রেহেনা চৌগাছা উপজেলার মাশিলা নারায়ণপুর গ্রামের মিঠুর স্ত্রী। তিনি যশোর শহরের রেলগেট এলাকায় বসবাস করেন। নিজেকে সাপ্তাহিক স্মৃতি পত্রিকার সাংবাদিক হিসেবে দাবি করেন রেহেনা।

গ্রেপ্তার অন্যরা হচ্ছেন- যশোর শহরের চাঁচড়া রায়পাড়া বিল্লা মসজিদ রোডের পিয়া (২০), শংকরপুর সরকারি মুরগির খামার এলাকার সোহেল (১৯), রেলরোডের রেলবাজার এলাকার বিসমিল্লাহ সেলুনের পেছনের বাসিন্দা বাবু ও আশ্রম রোডের সাহেব বাবুর বাড়ির সামনের বাসিন্দা তুহিন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে যশোর কোতোয়ালি মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সমীর কুমার সরকার বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ জানতে পারে, মোটরসাইকেলের সামনে ‘প্রেস’ লিখে শহরময় ঘুরে বেড়ান এক নারী। সাংবাদিক পরিচয়ে তিনি শহরের বিভিন্ন এলাকায় ইয়াবা বিক্রি করে আসছিলেন। তাকে গ্রেপ্তার করার জন্য কয়েকদিন ধরেই নজরে রাখা হয়েছিল। পরে বুধবার বিকেলে যশোর জিলা স্কুলের সামনে ওই নারীর সঙ্গীরা অবস্থান করছে জানতে পেরে তার চার সহযোগীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

এ সময় সোহেলের কাছে একটি ওয়াকিটকি পাওয়া যায়। ওয়াকিটকিটি সে ‘সাংবাদিক’ পরিচয়ধারী রেহেনা ওরফে লিপির কাছ থেকে পেয়েছে বলে পুলিশকে জানায়। পরে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী রেহেনাকে গ্রেপ্তার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে রেহেনা জানান, তিনি একটি অনলাইন শপ থেকে ওয়াকিটকি সেটটি কিনেছেন। ওয়াকিটকি দেখিয়ে পুলিশ পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করে আসছিলেন বলে স্বীকার করে লিপি ও তার সহযোগীরা।

পুলিশের পোশাক, হ্যান্ডকাফ, ওয়াকিটকি ইত্যাদিসহ রেহেনার কিছু ছবি পেয়েছে পুলিশ। তাদের বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হয়েছে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

Top
bahis siteleri