পিরোজপুরে মুসলিম কিশোরীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে হিন্দু যুবকের বিয়ে : ৩ দিন পরে ফাঁস হওয়ায় আটক

house_wife_rape.jpg

টেকনাফ টুডে ডেস্ক : পিরোজপুরে মুসলিম পরিচয়ে প্রেমের ফাঁদে ফেলে এক স্কুলছাত্রীকে বিয়ে করেছেন বাদল কুমার রায় (২৭) নামের এক হিন্দু ব্যাংক কর্মকর্তা। ঘটনাটি জানাজানি হলে স্থানীয়রা ওই প্রতারক যুবককে আটক করে পুলিশে দেয়। পরে ওই ছাত্রীর পরিবারের করা মামলায় তিনি এখন কারাগারে রয়েছেন।

কারাগারে যাওয়া বাদল সদর উপজেলার পাড়েরহাট এলাকার বাদুরা গ্রামের শিতাংশু কুমার রায়ের ছেলে। তিনি সদর উপজেলার হুলারহাট এলাকার রূপালী ব্যাংক শাখার সিনিয়র অফিসার হিসেবে কর্মরত আছেন।

গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তাকে পৌর শহরের খামকাটা এলাকা থেকে আটক করে সদর থানা পুলিশ। অভিযানে থাকা সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. আরিফুর রহমান জানান, প্রতারক যুবককে স্থানীয়রা আটক করে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ খামকাটা এলাকা থেকে তাকে থানায় নিয়ে আসে।

ভুক্তভোগী ওই স্কুলছাত্রী জানায়, সে দশম শ্রেণিতে পড়াশোনা করে। তার সঙ্গে প্রায় এক বছর আগে হুলারহাটের রূপালী ব্যাংক শাখার সিনিয়র অফিসার হিসেবে কর্মরত ওই যুবকের পরিচয় হয়। তখন তিনি নিজেকে মুসলিম পরিচয়ে বাদল শেখ নামে পরিচয় দেন। সেই থেকে তার সঙ্গে প্রেম করে তিন দিন আগে তারা বিয়ে করেন। বিষয়টি সে না জানলেও স্থানীয়রা বিষয়টি জেনে বাদলকে আটক করে পুলিশে দেয়।

পিরোজপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নুরুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ‘প্রতারক যুবক বাদল কুমার রায়কে থানা হাজতে অনার পর ভুক্তভোগী ওই স্কুল ছাত্রীকেও থানায় আনা হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে স্কুলছাত্রীর পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় মামলা দেওয়া হলে বাদলকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।’