bahis siteleri deneme bonusu veren siteler bonusal casino siteleri piabet giriş piabet yeni giriş
izmir rus escortlar
porno izle sex hikaye
corum surucu kursu malatya reklam

উখিয়ায় স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ : ঘাতক স্বামী পলাতক

Pic-Ukhiya-15-08-2019.jpg

ফারুক আহমদ : উখিয়ার রুমখাঁ গুরাচাঁদ মাতব্বর পাড়া গ্রামে সুপ্তী বড়ুয়া (৪০) নামক এক গৃহ বধুকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। নিহত পরিবারের অভিযোগ মাদকাসক্ত স্বামী স্বদেশ বড়ুয়া (৪৫) তার স্ত্রীকে অমানষিক নির্যাতন চালিয়ে হত্যা করেছে। ঘাতক স্বামী ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত ৯আগষ্ট শুক্রবার।
গ্রামবাসীরা জানান, উপজেলার হলদিয়া পালং ইউনিয়নের পুরাতন রুমখাঁ পশ্চিম বড়–য়া পাড়া গ্রামের মৃত সূর্য্যধন বড়–য়ার মেয়ে সুপ্তী বড়–য়ার সাথে রুমখাঁ চৌধুরী পাড়া গুরাচাঁদ মাতব্বর পাড়া গ্রামের চাতুক বড়–য়ার ছেলে স্বদেশ বড়ুয়ার মধ্যে বিবাহ হয়। তাদের সংসারে ২ছেলে ১ মেয়ে রয়েছে। অভিযোগে প্রকাশ স্বামী স্বদেশ বড়–য়া মাদকাসক্ত ছিল। প্রায় সময় মাদকের টাকার দাবিতে স্ত্রী সুপ্তীকে শারিরীক ও মানষিক নির্যাতন চালিয়ে আসছিল। এর পরও ছেলে মেয়েদের মুখের দিকে তাকিয়ে স্বামীর ঘরে ছিল নির্যাতিতা স্ত্রী।
জানাযায়, গত ৯ আগষ্ট বিকেলে স্বামীর ঘরে নিহত হন স্ত্রী সুপ্তী বড়–য়া। ওই সময় স্বামী কৌশলে সবাইকে বলে বেড়ায় তার স্ত্রী অভিমান করে আত্বহত্যা করেছে। নিহতের ছোট ভাই প্রবাল বড়–য়া অভিযোগ করে বলেন আমার বোনকে অমানষিক নির্যাতন চালায় স্বামী স্বদেশ বড়–য়া। নির্যাতনের এক পর্যায়ে আমার বোন অজ্ঞান হয়ে মৃত্যুর কোলে ডুলে পড়লে স্বামী তাকে গলায় ফাস দিয়ে ঘরে তালা দিয়ে বাহিরে চলে যায়। ঘটনার ৩/৪ ঘন্টার পর ঘাতক স্বামী নিজেই তার স্ত্রী আত্বহত্যা করছে বলে অপপ্রচার চালায়। খবর পেয়ে উখিয়া থানার অফিসার ইনর্চাজ (তদন্ত) নুরুল ইসলাম মজুমদারের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থল গিয়ে লাশের সুরতাহাল রির্পোট তৈরি সহ লাশ উদ্ধার করে কক্সবাজার ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেন। পুলিশ দেখে ঘাতক স্বামী ও তার ছেলে আকাশ বড়–য়া পালিয়ে যায়। এর আগে স্থানীয় চেয়ারম্যান, মেম্বার সহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ঘটনাস্থলে যান।
খোঁজখবর নিয়ে জানা গেছে, ঘটনার দিন স্বামী স্বদেশ বড়ুয়া ভিজিএফ কার্ড দিয়ে চাল উত্তোলন করার জন্য ইউনিয়ন পরিষদের উদ্দেশ্যে ঘর থেকে বের হয়। পথিমধ্যে মাদক ক্রয় করার জন্য কার্ডটি বিক্রি করে ফেলে। পরে মদ্যপান অবস্থায় ঘরে ফিরলে স্ত্রী চাল কোথায় জিজ্ঞাসা করলে তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে পাষন্ড স্বামী স্ত্রীকে অমানষিক নির্যাতন চালায়।
নিহত গৃহবধুর ভাই প্রবাল বড়ুয়া সাংবাদিকদেরকে বলেন, আমার বোন আত্বহত্যা করলে কিভাবে ঘরের বাহিরে দরজায় তালা লাগিয়ে দেয়। মূলত ঘাতক স্বামী আমার বোনকে ন্যাক্কারজনকভাবে নির্যাতন চালিয়ে হত্যা করে। ঘটনাটি ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে গলায় ফাঁস দিয়ে বাড়ির দরজা তালা লাগিয়ে পালিয়ে যায়। এব্যাপারে তদন্তকারী কর্মকর্তা ফরহাদ জানান, লাশের ময়না তদন্ত সপন্ন করা হয়েছে। ঢাকা মহাখালী হতে ভিসারা রির্পোট আসলে ঘটনার আসল রহস্য উদঘাটন করা সম্ভব হবে। থানায় এ বিষয়ে একটি ইউডি মামলা রুজু করা হয়েছে। নিহতের পরিবারের সদস্যদের দাবী ঘাতক লম্পট স্বামী স্বদেশ বড়ুয়াকে গ্রেফতার করে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসবাদ করলে হত্যাকান্ডের রহস্য জানা যাবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top
antalya escort bursa escort adana escort mersin escort mugla escort