শীর্ষ হুন্ডি সম্রাট টেকনাফের আব্দু রশিদ ভেক্কু চট্টগ্রামে আটক

vekko-house.jpg

বিশেষ প্রতিনিধি :
তালিকাভুক্ত হুন্ডি ব্যবসায়ী, শীর্ষ হুন্ডি সম্রাট টেকনাফের আব্দু রশিদ ভেক্কু চট্টগ্রামে আটক হয়েছেন বলে জানা গেছে।

একটি আইন শৃংখলা বাহিনী তাকে চট্টগ্রামের মনসুরাবাদ এলাকা থেকে বৃহস্পতিবার আটক করেন বলে একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে।

ভেক্কু টেকনাফ পৌরসভার কুলাল পাড়া এলাকার মৃত মো. আলী ছেলে।

তার বিরুদ্ধে টেকনাফ থানায় মানি লন্ডারিংয়ের মামলা নং ৫৫ (১৯/০৩/২০১৯ইং) রয়েছে বলে জানা গেছে।

এছাড়া জেলা পুলিশের করা ২২ শীর্ষ হুন্ডি ব্যবসায়ী যারা ইয়াবা ব্যবসার টাকা হুন্ডির মাধ্যমে দেশবিদেশে পাচার করতেন। সেই তালিকায় ভেক্কুর নাম রয়েছে। গোয়েন্দা সংস্থার করা ৬৩ হুন্ডি ব্যবসায়ীর তালিকায়ও রয়েছে ভেক্কুর নাম।

জানা গেছে, একসময়ের এনজিও কর্মী ভেক্কু ডলার-স্বর্ণ ও হুন্ডি ব্যবসার মাধ্যমে দেশের অর্থনীতির ক্ষতি করলেও নিজের ভাগ্য বদলে ফেলেন দ্রুত ।

সাধারন মধ্যবিত্ত ঘরের ছেলে থেকে কোটিপতির খাতায় নাম লেখান।

টেকনাফ সীমান্তে মিয়ানমারের চাল আমদানীর ছদ্মবেশে ভেক্কু ডলার-হুন্ডির মাধ্যমে অল্পদিনে কোটি কোটি টাকা আয় করেন।

পরে আইন শৃংখলা বাহিনীর নজর এড়াতে কৌশলে গা ঢাকা দেন।

প্রচুর অর্থ বিত্তের মালিক হওয়ার পর কুলাল পাড়া এলাকায় জমি কিনে তিনি তৈরী করেছেন আলিশান বাড়ি, এছাড়া টেকনাফ সদর ইউনিয়নের নাজির পাড়া, শীলবুনিয়া পাড়া, হ্নীলা, হোয়াইক্যং, পৌরসভার বিভিন্ন এলাকায় তার বহু বসতভিটার উপযোগী জমি ও বাগানবাড়ি রয়েছে বলে জানা গেছে। এছাড়া চট্টগ্রামেও তার বুহু নামী দামী সম্পদ রয়েছে বলে সূত্র জানিয়েছে।

তার বড় ভাই আব্দুল কাদের চিহ্নিত হুন্ডি ব্যবসায়ী, হুন্ডি ব্যবসার মাধ্যমে একই পথে কোটিপতির খাতায় নাম লেখান। তার আরেক ভাই মুস্তাক সেও হুন্ডি ও ইয়াবা কারবারে জড়িত রয়েছে বলে জানা গেছে।

নিকটাত্মীয় ও বিশ্বস্থ্য লোকজন দিয়ে হুন্ডি সিন্ডিকেট পরিচালনা করার কারনে ভেক্কু ছিলেন সর্বদা ধরা ছোয়ার বাইরে। অনুসন্ধান চালালে সিন্ডিকেটের সবার নাম বেরিয়ে আসবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

তবে তাকে আটকের ব্যাপারে চট্টগ্রামের সেই সংস্থার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

সচেতন মহল দাবী জানিয়েছেন, ভেক্কু যেহেতু একজন শীর্ষ হুন্ডি কারবারী। তাই তাকে রিমান্ডে এনে সীমান্তের হুন্ডি ব্যবসার নাড়ি নক্ষত্র দেশ বিদেশে থাকা হুন্ডি চক্রের নেটওয়ার্ক বের করে তা শেখর যেন উৎপাটন করা হয়।

প্রসঙ্গত আন্তর্জাতিক হুন্ডি চক্রের সদস্য টেকনাফের টিটি জাফর, বাট্টা আযুব সহ অনেক শীর্ষ হুন্ডি কারবারী এখনো ধরা ছোয়ার বাইরে রয়েছে ।