bahis siteleri deneme bonusu veren siteler bonusal casino siteleri piabet giriş piabet yeni giriş
izmir rus escortlar
porno izle sex hikaye
corum surucu kursu malatya reklam

আজ উইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচ : বাংলাদেশের চাই জয়

bcc87654.jpg

স্পোর্টস ডেস্ক |
টন্টনের ছোট মাঠে মাশরাফিদের সামনে আজ বড় চ্যালেঞ্জ। প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটিং লাইনআপ ঠাসা হার্ডহিটার ব্যাটসম্যানে। গেইল, রাসেলদের অনেক মিস হিটেও বল আছড়ে পড়তে পারে গ্যালারিতে। বাংলাদেশ দলে এমন কোনো পাওয়ার হিটার নেই।

পাশাপাশি বাংলাদেশকে সামলাতে হবে গতিময় শর্ট বলের তোপ। এই বিশ্বকাপে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মূল অস্ত্র পেস বোলিং। সব প্রতিপক্ষকেই তারা বাউন্সারে ঘায়েল করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। উইন্ডিজের পেস আক্রমণে অন্তত তিনজন বোলার আছেন যাদের বলের গতি ঘণ্টায় ১৪০ কিলোমিটারের বেশি। বাংলাদেশ দলে এমন গতিময় পেসার নেই একজনও। দলের সব পেসারই মিডিয়াম পেসার।

ধারাবাহিকভাবে ১৪০ কিলোমিটার গতিতে বল করতে পারেন না কেউই। টন্টন কাউন্টি গ্রাউন্ডের ছোট মাঠে উইন্ডিজের আগ্রাসী ব্যাটিংয়ের সামনে এই পেস আক্রমণ কতটা কার্যকর হতে পারে, সেই প্রশ্ন তাই থাকছেই। ম্যাচ প্রিভিউয়ের শুরুতে এমন হতাশার ছবি সামনে আনাটা অবশ্য নিতান্তই পূর্ব সতর্কতা! মুদ্রার উল্টো পিঠের ছবিটা বলছে এই ম্যাচে পরিষ্কার ফেভারিট বাংলাদেশ। গত এক বছরে দু’দলের শেষ নয়টি ওয়ানডের সাতটিই জিতেছে বাংলাদেশ। বিশ্বকাপের ঠিক আগেই আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজে উইন্ডিজকে তিনবার হারিয়েছেন মাশরাফিরা। সেই আত্মবিশ্বাস থেকেই দ্বিতীয় কোনো ভাবনা মাথায় না নিয়ে শুধু জয়ের মন্ত্র জঁপছে বাংলাদেশ। সেমির স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখতে আজ জিততেই হবে বাংলাদেশকে।

দু’দলের জন্যই অবশ্য ম্যাচটা বাঁচা-মরার। চার ম্যাচ শেষে সমান তিন পয়েন্ট নিয়ে একই বিন্দুতে দাঁড়িয়ে দু’দল। যাত্রাপথেও আছে সাদৃশ্য। জয় দিয়ে বিশ্বকাপ শুরুর পর দুই হার। একটি ম্যাচ ভেসে গেছে বৃষ্টিতে।

সেই হতাশা পেছনে ফেলে জয়ের ধারায় ফিরতে দুই অধিনায়কই তাকিয়ে এই ম্যাচের দিকে। মাশরাফি মুর্তজা ও জেসন হোল্ডারের জন্য সুখবর হল, ম্যাচ ভাসিয়ে দেয়ার মতো ভারি বৃষ্টির পূর্বাভাস নেই আজ টন্টনে। সকাল ও দুপুরে হালকা বৃষ্টি হতে পারে। সেই সম্ভাবনাও ২৫ শতাংশের কম। আগের ম্যাচে বাংলাদেশের বড় ক্ষতি করে গেছে বৃষ্টি।

রুগ্ন শ্রীলংকার বিপক্ষে প্রত্যাশিত জয়ের বদলে শুধু এক পয়েন্ট মেলায় এখন সেমির লক্ষ্য পূরণে বাকি পাঁচ ম্যাচর অন্তত চারটিতে জিততেই হবে বাংলাদেশকে। এর মধ্যে রয়েছে অস্ট্রেলিয়া ও ভারতের বিপক্ষে জোড়া অগ্নিপরীক্ষা। উইন্ডিজের বিপক্ষে তাই জয়ের কোনো বিকল্প নেই বাংলাদেশের সামনে। দু’দলের পয়েন্ট সমান হলেও নেট রানরেটে পিছিয়ে থাকায় বাংলাদেশ পড়ে আছে পয়েন্ট টেবিলের আটে।

ছোট মাঠ এবং প্রতিপক্ষের শক্তি-দুর্বলতা মাথায় রেখে বাংলাদেশের একাদশে আজ দুটি পরিবর্তন আসতে পারে। মোহাম্মদ মিঠুনের জায়গায় লিটন দাসের খেলা অনেকটা নিশ্চিত। এছাড়া পেস আক্রমণের শক্তি বাড়াতে একাদশে আসতে পারেন রুবেল হোসেন। তবে তিনি কার জায়গায় খেলবেন তা পরিষ্কার নয়। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচে ঊরুতে চোট পাওয়া সাকিব আল হাসান সেরে উঠেছেন। ফল হওয়া তিন ম্যাচে এক সেঞ্চুরি ও দুই ফিফটিতে ২৬০ রান করা সাকিবের দিকে আজও তাকিয়ে থাকবে দল।

গত পরশু অনুশীলনের সময় বলের আঘাতে হাতে চোট পেলেও মুশফিকুর রহিমের খেলা নিয়ে তেমন অনিশ্চয়তা নেই। উইন্ডিজের বিপক্ষে শেষ ১০ ওয়ানডেতে পাঁচটি ফিফটি রয়েছে মুশফিকের। ছন্দে না থাকা দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকারের কাছেও একটি বড় ইনিংস এখন সময়ের দাবি। নিজে রানের জন্য সংগ্রাম করলেও প্রিয় প্রতিপক্ষ উইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশকে ফেভারিট বলতে কোনো দ্বিধা নেই তামিমের, ‘ফেভারিট আমরা হতেই পারি।

সাম্প্রতিক অতীতে আমরাই ওদের বিপক্ষে বেশি জিতেছি। আমাদের দলে হয়তো ওয়েস্ট ইন্ডিজের মতো এত বিগ হিটার নেই। কিন্তু যতটা দরকার, ততটা আছে। ফর্মে থাকলে বড় মাঠও ছোট হয়ে যায়। আবার ফর্মে না থাকলে ছোট মাঠও বড় হয়ে যায়। মাঠের আকার নিয়ে তাই ভাবার কিছু নেই।’

শেষ ম্যাচে ইংল্যান্ডের কাছে বিধ্বস্ত হওয়া উইন্ডিজ অধিনায়ক জেসন হোল্ডার অবশ্য বাংলাদেশের বিপক্ষে সাম্প্রতিক রেকর্ড নিয়ে ভাবিত নন, ‘আমরা অতীত নিয়ন্ত্রণ করতে পারব না। তবে ভবিষ্যৎ এমন কিছু যা নিয়ন্ত্রণ করতে পারি। বাংলাদেশের বিপক্ষে ঘুরে দাঁড়াতে তিন বিভাগেই আরও উন্নতি করতে হবে আমাদের।’

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top
antalya escort bursa escort adana escort mersin escort mugla escort