চকরিয়ায় শিক্ষার্থী আনাস খুনের মামলার আসামী সাবিদ ১৭ দিন পর চট্টগ্রাম থেকে গ্রেপ্তার

Chakaria-Picture-12-06-2019..jpg

এম.জিয়াবুল হক, চকরিয়া :
চকরিয়া উপজেলার চাঞ্চল্যকর স্কুল শিক্ষার্থী আনাস ইব্রাহিম হত্যাকান্ডের ১৭দিন পর মামলার এজাহারনামীয় আসামী সালাহউদ্দিন সাবিদকে (২১) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত সোমবার দিবাগত রাতে চট্টগ্রাম মহানগরীরর বহদ্দারহাটস্থ হক মার্কেট থেকে চকরিয়া থানা পুলিশের একটিদল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করেন। গ্রেপ্তারকৃত সালাহউদ্দিন চকরিয়া পৌরসভার ৭নম্বর ওয়ার্ডের পালাকাটাস্থ হাসেম মাস্টার পাড়ার নাজিম উদ্দিনের ছেলে। তিনি আনাস ইব্রাহিম হত্যা মামলার এজাহারনামীয় চার নাম্বার আসামী।
থানা পুলিশ জানায়, চকরিয়ার আলোচিত স্কুল শিক্ষার্থী আনাস হত্যাকান্ডের এক আসামী চট্টগ্রাম মহানগরীরর বহদ্দারহাটস্থ হক মার্কেট এলাকায় অবস্থান করছে এ ধরণের সংবাদ পেয়ে সোমবার রাতে চকরিয়া থানা পুলিশের একটি টীম অভিযানে নামেন।
চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: হাবিবুর রহমানের নেতৃত্বে ও চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ডিবি পুলিশের সহায়তায় অভিযান চালিয়ে মামলার এজাহারনামীয় চার নাম্বার আসামী সালাহউদ্দিন সাবিদকে গ্রেপ্তার করে। অভিযানে অংশ নেন থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) এস এম আতিক উল্লাহ, উপপরিদর্শক এস আই জাকির হোসেনসহ সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স।
প্রসঙ্গত: ঈদের কেনাকাটা করে বাড়ি ফেরার পথে গত ২৫ মে রাত সাড়ে ১০টার দিকে চকরিয়া পৌরশহরের সুপার মার্কেটের সামনে দূবৃত্তরা প্রকাশ্যে স্কুলছাত্র আনাস ইব্রাহীমকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায় । পরে গুরুতর আহত অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে নেওয়ার পথে চুনতি এলাকায় মারা যায় আনাস।
ঘটনার পর নিহতের বাবা মৌলানা নেছার আহমদ বাদী হয়ে চকরিয়া থানায় ৬ জনের নাম উল্লেখ করে ১২ জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ঘটনার দিন এজাহারভুক্ত ৬ নম্বর আসামী শামশুল আলমের ছেলে মোহাম্মদ রিয়াজকে (১৮) ঘটনার দিন গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ঘটনার ১৭ দিন পর সোমবার রাতে মামলার আরেক আসামীকে চট্টগ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করলো পুলিশ। এতে হত্যাকান্ডে আসল রহস্য উম্মোচন ও অপর আসামীদের গ্রেপ্তারে অনেকটা সহজ হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।
চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: হাবিবুর রহমান বলেন, আনাস ইব্রাহিম হত্যা মামলায় পুলিশ ইতোমধ্যে দুই আসামীকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছে। মামলায় অপারাপর আসামীরাও অচিরেই ধরা পড়বে। গ্রেপ্তার দুইজনকে পুলিশ হেফাজতে নিয়ে ঘটনার আসল রহস্য উন্মোচন করা হবে।##