টেকনাফে বন্দুক যুদ্ধে রোহিঙ্গা মাদক পাচারকারী নিহত

Teknaf-Pic-A-10-06-19.jpg

হুমায়ূন রশিদ : টেকনাফে মাদকের চালান নিয়ে অনুপ্রবেশের চেষ্টাকালে এক অজ্ঞাত রোহিঙ্গা মাদক পাচারকারী বন্দুক যুদ্ধে নিহত হয়েছে।
বিজিবি সুত্র জানায়, ১০জুন রাতের প্রথম প্রহরে মিয়ানমার থেকে ইয়াবার একটি চালান আসার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দমদমিয়া বিওপির নায়েক মোঃ হাবিবুর রহমানের নেতৃত্বে বিজিবির একটি টহলদল জাদিমোরা সীমান্ত এলাকায় অবস্থান নেয়। কিছুক্ষণ পর একটি হস্তচালিত নৌকাযোগে ৪/৫জন ব্যক্তি বাংলাদেশ জলসীমায় প্রবেশ করলে বিজিবি সদস্যরা চ্যালেঞ্জ করামাত্র গুলিবর্ষণ শুরু করে। বিজিবিও জান-মাল রক্ষার্থে বেশ কয়েক রাউন্ড গুলিবর্ষণ করলে কয়েকজন নদীতে ঝাঁপ দেয়। গোলাগুলি থেমে গেলে ঘটনাস্থল তল্লাশী করে ৫০হাজার ইয়াবা, ১টি দেশীয় একনলা বন্দুক, ২রাউন্ড গুলির খালি খোসা ও ১টি কাঠের নৌকাসহ গুলিবিদ্ধ অজ্ঞাত এক ব্যক্তিকে উদ্ধার করে। তাকে দ্রæত উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নেওয়া হয়। সেখানে সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। এই ঘটনার খবর পেয়ে টেকনাফ মডেল থানার একদল পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরীর পর লাশ পোস্টমর্টেমের জন্য মর্গে প্রেরণ করে।
উক্ত এলাকার স্থানীয় সুত্রের দাবী নিহত মাদক কারবারী মিয়ানমারের মন্ডু থানার পেরাংপুরের মোহাম্মদ নুরের পুত্র মোঃ রফিক (৩০) বলে জানা যায়।

টেকনাফ ২ বিজিবি ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক লেঃ কর্নেল ফয়সল হাসান খান (পিএসসি),এই মাদক উদ্ধার অভিযান ও বন্দুক যুদ্ধে সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এই ব্যাপারে তদন্ত স্বাপেক্ষে মামলার প্রস্তুতি চলছে এবং এই সীমান্তকে মাদক ও অপরাধমুক্ত করতে বিজিবি আরো আন্তরিকভাবে দায়িত্ব পালন করছে আশ্বস্থ করেন। ###