porno porn
izmir rus escortlar
porno izle sex hikaye
corum surucu kursu malatya reklam

মাতামুহুরী নদীতে গোসল করতে নেমে দোকান কর্মচারী মৃত্যু

Chakaria-Picture-14-05-19.jpg

এম.জিয়াবুল হক : চকরিয়া উপজেলার মাতামুহুরী নদীতে গোসল করতে নেমে পানিতে ডুবে মোহাম্মদ রিফাত (১৯) নামের এক যুবকের সলিল সমাধি ঘটেছে। মঙ্গলবার সকাল আটটার দিকে ওই যুবক পানিতে ডুবে গেলেও স্থানীয় লোকজনের চেষ্টা ব্যর্থ হবার পর চট্টগ্রাম থেকে আসা ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিদল টানা সাড়ে ৫ঘন্টা নদীতে তল্লাসি অভিযান চালিয়ে এদিন দুপুর দেড়টার দিকে উপজেলার সাহারবিল ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের মাইজঘোনা পশ্চিমপাড়াস্থ নদী পয়েন্ট থেকে তাঁর মরদেহ উদ্ধার করেছে।
নিহত মো.রিফাত চকরিয়া উপজেলার কাকারা ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের পাহাড়তলী এলাকার মৃত সৈয়দ হোসেনের ছেলে। তিনি চকরিয়া পৌরশহরের একটি জুতার দোকানে কর্মচারী হিসেবে কাজ করতেন। রাতে দোকান বন্ধ করে প্রতিদিনের মতো রিফাত দোকানের মালিক মৌলানা নূরুল আমিনের সাহারবিল ইউনিয়নের মাইজঘোনাস্থ বাড়িতে থাকতেন। সে সুবাদে প্রতিদিন পাশের মাতামুহুরী নদীতে গোসল করতেন রিফাত।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে চকরিয়া ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের ষ্টেশন অফিসার মো. সাইফুল হাসান বলেন, গতকাল মঙ্গলবার সকাল আটটার দিকে উপজেলার সাহারবিল ইউনিয়নের মাইজঘোনা পশ্চিমপাড়া পয়েন্টে মাতামুহুরী নদীতে গোসল করতে নেমে এক যুবক নিখোঁজ হওয়ার খবর পেয়ে আমরা সকাল ৯টার দিকে ঘটনাস্থলে যাই। পরে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা অনেক চেষ্টা করেও নিখোঁজ যুবককে উদ্ধার করতে পারেনি।
তিনি বলেন, এরপর বিষয়টি চট্টগ্রামে ফায়ার সার্ভিসের উধর্বতন কর্মকর্তাদেরকে জানানো হয়। এরপর চট্টগ্রাম থেকে পাঠানো হয় একটি প্রশিক্ষিত ডুবুরী দলকে। দুপুর বারটার দিকে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরী দল এসে দেড় ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে মাতামুহুরী নদী থেকে ওই যুবকের লাশ উদ্ধার করে। পরে নিহত ওই যুবকের মরদেহটি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মহসিন বাবুলের জিম্মায় দিয়ে দেওয়া হয়।
ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে উদ্ধার অভিযানে অংশ নেন চকরিয়া থানার এসআই কামরুল হাসানের নেতৃত্বে পুলিশের একটিদল। পুলিশ কর্মকর্তা কামরুল হাসান বলেন, মাতামুহুরী নদীতে গোসল করতে নেমে চোরা বালিতে আটকে নিখোঁজ যুবক রিফাতের মরদেহ টানা সাড়ে পাঁচ ঘন্টা পর উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরী দল।
চকরিয়া থানার ওসি মো.হাবিবুর রহমান বলেন, নদীতে সলিল সমাধি হওয়া যুবকের মরদেহটি পরিবারের আবেদনের প্রেক্ষিতে বিনা ময়নাতদন্তে দাপনের জন্য হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে। ##

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top
bedava bahis bahis siteleri
bahis siteleri