উখিয়ায় সন্ত্রাসী কায়দায় জমি জবর দখল করতে মরিয়া ভূমিদস্যুরা !

dokal.jpg

ফারুক আহমদ : উখিয়ার রাজা পালং ইউনিয়নের রেজুরকুল গ্রামের ভূমিদুস্য নিলু বড়ুয়া ও পলাশ বড়ুয়া চক্রের গংরা জালিয়াতির মাধ্যমে ভূয়া খতিয়ান সৃজন, বিক্রিত জমি পূণরায় বিক্রয় ও অবৈধ ভাবে জবর দখলের ঘটনা নিয়ে এলাকার সাধারণ নিরহ জমির মালিক হয়রানির শিকার হচ্ছে বলে গুরুতর অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনা নিয়ে জমির প্রকৃত মালিক অরুণ বড়ুয়া বাদি হয়ে কক্সাবাজার জুডিশিয়াল আদালতে মামলা দায়ের করেছে।

প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, ওই এলাকার মৃত রিরিঞ্চি বড়ুয়া তার প্রাপ্ত ভাগজাত মূলে ১০ শতক জমি গত ০৯-০৭-১৯৮৬ইং তারিখে অরুণ বড়ুয়াকে বিক্রি করে। যার দলিল নং- ১৪৯৮। বিএস খতিয়ান নং- ১০৪৯। গত ০৭-০৮-১৯৬৯ সালের ১৯৩০নং ভাগজাতের অংশিদার হিসাবে ১০৪৯নং খতিয়ানে বিরিঞ্চি বড়ুয়ার আর কোন জায়গা জমি নেই।

এদিকে, জমির ক্রয়কৃত মালিক অরুণ বড়ুয়া যুগযুগ ধরে উক্ত জমি ভোগ দখল সহ চাষাবাদ করে আসতেছে। অভিযোগে প্রকাশ, বজেন্দ্র বড়ুয়ার ছেলে পলাশ বড়ুয়া সু- কৌশলে মৃত দাদা বিরিঞ্চি বড়ুয়ার বিক্রিত জমি ভূমি অফিসের কতিপয় কর্মচারীর সহযোগিতায় পুণরায় সৃজিত বিএস খতিয়ান লিপিবদ্ধ করে। যার নং- ১৮৬৬ তারিখ ১১-০৫-২০১১ইংরেজী।

সচতুর পলাশ বড়ুয়া বিভিন্ন ভূয়া দলিল সৃষ্টি ও সৃজিত বিএস খতিয়ানের অনুবলে দাদার বিক্রিত জমি একই এলাকার পরিমল বড়ুয়ার ছেলে নিলু বড়ুয়া ড্রাইভারকে বিক্রি করে। অথচ উক্ত জমি অরুণ বড়ুয়ার দখলে আছে এবং ভোগ দখল করতেছে।

অভিযোগে আরও প্রকাশ, ভূমিদুস্য নিলু ড্রাইভার স্থানীয় সন্ত্রাসী বাহিনী গঠন করে একাধিক বার অরুণ বড়ুয়ার জমি জবর দখলের অপচেষ্টা করে। এ ঘটনায় নিরুপায় হয়ে অসহায় অরুণ বুড়য়া বাদী হয়ে ২০১৮ সালে কক্সবাজার জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করে। সম্প্রতি অরুণ বড়ুয়া মারা গেলে ভূমিদুস্য নিলু ও পলাশ বড়ুয়া গং আরও বেপরোয়া হয়ে উঠে । পরেশ বড়ুয়া অভিযোগ করে বলেন আমার পিতা মারা যাওয়ার সুযোগে চলতি মাসে একাধিকবার আমাদের ভোগ দখলীয় জমি জবর দখলের চেষ্টা সহ নানা ধরণের হুমকি-ধমকি দিয়ে যাচ্ছে। এমনকি গত ০৬ মে গভীর রাতে আমাকে হত্যার জন্য বাড়িতে হানা দেয় । চিৎকার শুনে এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে আমরা প্রাণে রক্ষা পায়। তিনি বলেন সত্য ঘটনা ধামা চাপা দিতে ভূমিদুস্য নিলু ড্রাইভার উল্টো আমাদের বিরুদ্ধে থানায় মিথ্যা জিডি লিপিবদ্ধ করেছে। এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা গেছে এ চক্রের সদস্যরা অন্য ব্যক্তির দখলীয় খতিয়ান ভূক্ত জায়গা অনুরুপভাবে জবর দখলের জন্য বহুবার দাঙ্গা- হাঙ্গামার ঘটনা সংগঠিত করেছে।

ভূক্তভোগী নিরহ পরিবার ভুমিদুস্য নিলু বড়ুয়া ও পলাশ বড়ুয়া চক্রের হাত থেকে জমি রক্ষা এবং জীবণের নিরাপত্তার দাবী জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট প্রসাশনের নিকট।