porno porn
izmir rus escortlar
porno izle sex hikaye
corum surucu kursu malatya reklam

কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে যে ৫ ফলের রস

fol-5-20190413153357.jpg

টেকনাফ টুডে ডেস্ক : কোষ্ঠকাঠিন্য এক বিরক্তিকর সমস্যার নাম। এর কারণে অস্বস্তিতে ভুগে থাকেন অনেকেই। কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে মুক্তি পেতে হলে হজমের দিকে নজর দিতে হবে। এর জন্য ওষুধ তো অনেক রয়েছে, কিন্তু ওষুধের তো সাইড এফেক্টও থাকে। এর থেকে ভালো হয় যদি ঘরে বসেই এই সমস্যার সমাধান করা যায়। আর এ ক্ষেত্রেই আপনি ফলের রস বা জুসের সাহায্য নিতে পারেন।

জুসের আছে ভিটামিন, মিনারেল, ফাইবার। আর আছে প্রচুর পরিমাণ পানি। এই পানি মল নরম করে। ফাইবার মল তৈরি হতে আর শরীর থেকে তা নির্গত হতে সাহায্য করে। সরবিটল নামক এক ধরনের কার্বোহাইড্রেট থাকে জুসে যা মল পরিষ্কার করে। এছাড়া জুসের মধ্যে যে ভিটামিন বা মিনারেল থাকে তা তো আমাদের শরীরের সার্বিক বিকাশের জন্য খুবই উপকারী। জেনে নিন কী কী জুস খাবেন-

আপেলের রস

আপেলের মধ্যেও ফাইবার আছে। এর সঙ্গে আছে ভিটামিন আর মিনারেল। এছাড়াও একটি ল্যাক্সেটিভ গুণ রয়েছে। এর সঙ্গে মৌরি গুঁড়া নিতে পারেন যার মধ্যে আছে ডায়াটেরি ফাইবার আর তাই এটি মলের মধ্যে পানির অংশ যোগ করে মল নরম করে।

বীজ ছাড়ানো ১টি আপেল, ১/২ চামচ মৌরি গুঁড়া ও ১/২ কাপ পানি নিন। আপেল টুকরো করে কেটে পানি মিশিয়ে ব্লেন্ড করে নিন। এবার রস বের করে নিন একটি পাত্রে। এই রসের মধ্যে একটু মৌরি গুঁড়া দিয়ে দিন, খেতে ভালো লাগবে।

নাসপাতির রস

নাসপাতির মধ্যেও আছে ফাইবার ও সরবিটল। যেহেতু সরবিটল মলের নির্গমনে বাঁধা দূর করে, তাই এই রস কোষ্ঠকাঠিন্যে দারুণ কাজ দেয়। এর সঙ্গে নিতে পারেন লেবুর রস, যার মধ্যে আছে ভিটামিন, মিনারেল যা প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

বীজ বের করা ২টি নাসপাতি, ২ চামচ লেবুর রস ও এক চিমটি লবণ নিন। নাসপাতি কেটে ব্লেন্ড করে নিন। এবার এটি থেকে খোসা চিপে নিয়ে রস অন্য পাত্রে ঢালুন। এই রসের মধ্যে লেবুর রস ও লবণ মেশান। ভালো করে নেড়ে এবার খেয়ে নিন।

কমলার রস

কমলালেবু হল ভিটামিন সি, মিনারেল আর ডায়াটেরি ফাইবারে সমৃদ্ধ। ডায়াটেরি ফাইবার মলে পানি শোষণ ক্ষমতা বাড়ায়, মল তাই নরম হয়।

১ কাপ কমলালেবুর কোয়া ও ১/২ চামচ লবণ নিন। কমলার কোয়া ব্লেন্ড করে নিন। এবার এর থেকে রস বের করে নিন একটি পাত্রে। রসের মধ্যে খানিক লবণ মিশিয়ে খেয়ে নিন।

পাতিলেবুর রস

পাতিলেবুতে আছে ভিটামিন সি আর ফাইবার, যা খালি কোষ্ঠকাঠিন্যের জন্য ভালো নয়, এটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। এর সঙ্গে নিতে পারেন জিরা গুঁড়া যা হজমে সাহায্য করে। আর মধুতে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট আছে, যা টক্সিন বের করে।

অর্ধেক লেবু, ১ কাপ গরম পানি, ১ চা চামচ মধু ও ১/২ চা চামচ জিরা গুঁড়া নিন। গরম পানিতে লেবুর রস, মধু আর জিরা গুঁড়া মেশান। ভালো করে নেড়ে খেয়ে নিন।

আলুবোখারার রস

আলুবোখারার মধ্যে আছে ডায়েটারি ফাইবার আর সরবিটল যা মলের নির্গমনে গতি আনে। মধু স্বাভাবিক অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল আর অ্যান্টি অক্সিডেন্টে ভরপুর যা শরীর থেকে টক্সিন বের করে।

৫-৬টি আলুবোখারা, ১/২ চা চামচ মধু, ১/২ চা চামচ জিরা ও ১ কাপ গরম পানি নিন। প্রথমে আলুবোখারা গরম পানিতে ৫ মিনিট মতো রেখে দিন। এবার আলুবোখারা নরম হয়ে গেলে আপনি তার থেকে বীজ বের করে নিন আর শাঁস পানির সঙ্গে ব্লেন্ড করে নিন। এবার ওই রসের মধ্যে মধু আর জিরা মেশান। এই মিশ্রণটা এবার ভালো করে মিশিয়ে ছেঁকে নিন একটি পাত্রে আর খেয়ে নিন।

জুস খাওয়ার নিয়ম

জুস খেতে হবে মানে এমন নয় যে অনেকটা করে খেতে হবে। রোজ এক কাপ করে জুস খান। তবে এতে কোনো চিনি মেশাবেন না। আপনি রোজ সকালে উঠে এই জুস আগে খান। পারলে এর মধ্যে অল্প একটু জিরা দিতে পারেন। এতে স্বাদ বাড়বে। এর পাশাপাশি কোলন থেকে টক্সিনও বের হয়ে যাবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top
canlı bahis canlı poker canlı casino canlı casino canlı casino canlı casino oyna canlı casino