porno porn
izmir rus escortlar
porno izle sex hikaye
corum surucu kursu malatya reklam

কক্সবাজার সদরে জুয়েল ও পেকুয়ায় কাশেমকে বিজয়ী করার আহবান : নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান সাঈদী

Chakaria-Pc-22-03-2019-Saydi.jpg

নিজস্ব প্রতিবেদক,চকরিয়া : শুক্রবার কক্সবাজার সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনীত নৌকার চেয়ারম্যান প্রার্থী কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের প্রয়াত সভাপতি মোজাম্মেল হকের ছেলে কাইছারুল হক জুয়েল এর সমর্থনে সদর উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের নতুন অফিসে ব্যাপক গনসংযোগ ও পথসভা করেছেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ ফজলুল করিম সাঈদী। সন্ধ্যার দিকে তিনি ইসলামপুর নতুন অফিস স্টেশনে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের আয়োজনে নির্বাচনী সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন। সভায় সভাপতিত্ব করেন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও ইসলামপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মনজুর আলম সওদাগর। নৌকার গনসংযোগ ও পথসভায় ওইসময় ইসলামপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও সহযোগি সংগঠনের সকলস্তরের নেতাকর্মী এবং সর্বস্তরের জনসাধারণ উপস্থিত ছিলেন।
অপরদিকে একইদিন দুপুরে চকরিয়া উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ ফজলুল করিম সাঈদী পেকুয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকার চেয়ারম্যান প্রার্থী ও পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেমের প্রচারণায় নামেন। ওইসময় নবনির্বাচিত চকরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ফজলুল করিম সাঈদী ছাড়াও এমপি জাফর আলমের ছেলে তানভীর সিদ্দিকী তুহিন প্রচারনায় অংশনেন।
পেকুয়ার ইউনিয়নগুলোর গ্রামে গ্রামে গিয়ে নৌকা প্রতীকে ভোট চান তারা। পাশাপাশি আবুল কাশেমও ভোটারদের বাড়ি বাড়ি যাচ্ছেন। যোগ দিচ্ছেন ঘরোয়া ও উঠান বৈঠকে। এছাড়া বিভিন্ন বাজারের মোড়ে মোড়ে পথসভা করতে দেখা গেছে। এসব বৈঠক ও সভায় মানুষের স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করছে।
পেকুয়া উপজেলার শিলখালী ইউপি আওয়ামী লীগের সভাপতি ওয়াহিদুর রহমান ওয়ারেচি বলেন, আবুল কাশেম পেকুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। তিনি তিন দশক ধরে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে নৌকা প্রতীক দিয়েছেন। তাকে নির্বাচিত করলে কাঙ্খিত উন্নয়ন পাবো।
চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রার্থী আবুল কাশেম বলেন, নির্বাচিত হলে উপজেলার উন্নয়ন তরান্বিত হবে। এছাড়া পেকুয়া সদরে জিম্মি জনসাধারণকে মুক্ত করতে পারব বলে বিশ্বাস। তিনি বলেন, মানুষের ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি। তারা একজন নিরাপদ জনপ্রতিনিধি চায়। ভোটাররা নৌকা প্রতীকে ভোট দিবে বলে আমার বিশ্বাস।
পেকুয়া উপজেলায় ৪০ টি কেন্দ্রে ২৫০ টি বুথের মাধ্যমে এক লাখ ৬ হাজার ২ শ ৮৯ ভোটার ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। নির্বাচন উপলক্ষে চারজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, একজন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, চার প্লাটুন বিজিবি, এক প্লাটুন র‌্যাব, সাত প্লাটুন পুলিশ, ৫০ পিবিআই সদস্য মাঠে থাকবেন। পাশপাশি আনসার সদস্যরাও নির্বাচনী দায়িত্ব পালন করবেন।##

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top
canlı bahis canlı poker canlı casino canlı casino canlı casino canlı casino oyna canlı casino