টেকনাফে পালকি’র গণজোয়ার, মানুষের ভালোবাসায় সিক্ত হচ্ছেন ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী জাবেদ ইকবাল চৌ:

54410188_2222618317795413_391775517897916416_n.jpg

নুরুল করিম রাসেল : টেকনাফের সর্বত্র উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী জাবেদ ইকবাল চৌধুরীর পালকি প্রতিকের গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। আগামী ২৪ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে টেকনাফ উপজেলা নির্বাচনের ভোট গ্রহন। ভোটের আরো এক সপ্তাহ সময় বাকি থাকলেও এখনই টেকনাফে পালকি’র গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে।

বাজার-স্টেশন, রেস্তোরা-চায়ের দোকান সর্বত্রই এখন ভোটের আলোচনায় সরগরম। এ আলোচনায়

সবার মুখে মুখে একই কথা ৮জন ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে জাবেদ ইকবাল চৌধুরীই সবচেয়ে যোগ্য প্রার্থী এবং উচ্চ শিক্ষিত। টেকনাফের উন্নয়নে এরকম প্রার্থীই এইবার নির্বাচিত করতে চান ভোটাররা।

সদর ইউনিয়নের মো. ইউছুপ নামে এক ভোটার জানান, অতীতে আমরা অনেক ভুল করেছি। এমন অনেক জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত করেছি যারা বিভিন্ন অভিযোগে নিজেদের রক্ষা করতে পালিয়ে পালিয়ে থেকেছেন। ফলে জনগন তাদের সেবা পাওয়া তো দুরের কথা তাদের দেখাই পাননি। ফলে আমরা এবার একজন শিক্ষিত ও যোগ্য প্রার্থীতে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত করতে চাই।

ইউছুপের মতো টেকনাফের প্রায় প্রতিটি এলাকার ভোটারদের মুখে একই কথা। আমরা আইন শৃংখলা বাহিনীর ভয়ে পালিয়ে থাকতে হয় এমন কাউকে এবার নির্বাচিত করতে চাই না।

তাই টেকনাফে সব শ্রেনীর ভোটারদের কাছে এবার পছন্দের ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী সাংবাদিক জাবেদ ইকবাল চৌধুরী।

অনেক বছর যাবৎ টেকনাফের মানুষ খুব কাছ থেকে দেখছেন জাবেদ ইকবাল চৌধুরী কে। প্রায় ৩ দশকের রাজনৈতিক ক্যারিয়ারে ছাত্রলীগ-যুবলীগের রাজনীতির মধ্য দিয়ে বর্তমানে পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য। এছাড়া তিনি সাংবাদিক হিসাবে সবসময় নির্যাতিত-নিপীড়িত মানুষের কথা তুলে ধরেছেন। সবসময় অন্যায়ের প্রতিবাদে সোচ্চার থেকেছেন। ফলে তার জনপ্রিয়তা তুঙ্গে রয়েছে।

জাবদ ইকবাল চৌধুরী জানিয়েছেন, মানুষ যেভাবে তাকে বুকে টেনে নিচ্ছেন ভালবাসা দেখাচ্ছেন তা কোনদিন ভুলার নই। তিনি নির্বাচিত হলে আমৃত্যু টেকনাফ বাসীর সুখে-দুখে পাশে থাকবেন বলে জানান।

এদিকে শনিবার তিনি টেকনাফ সদর ইউনিয়ন, পৌরসভা ও সাবরাং ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ, উঠান বৈঠকে মিলিত হয়েছেন।

এসময় সাধারন মানুষ তাকে অত্যন্ত আপন করে নেন। অনেকেই বলেছেন অনেক দিন পর একজন মনের মতো প্রার্থী পেয়েছেন তারা।

টেকনাফ লেঙ্গুরবিল মহিউচ্ছুন্ন বালিকা মাদ্রাসায় বাষিক মাহফিলে ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য দিতে গিয়ে তিনি বলেন, দেশের সর্বোচ্চ ডিগ্রী অর্জন করেও অামি কোন চাকুরীর পিছে ছুটিনি। সমসময় টেকনাফবাসীর সেবায় রাজনৈতিক অঙ্গনে সময় কাটিয়েছি। কখনো শিক্ষকতা করে আবার কখনো সাংবাদিকতার আয় দিয়ে সংসার চালিয়েছি। তারপরও অর্থবিত্ত বাড়ির গাড়ীর পিছনে ছুটিনি অথচ ক্ষমতাসীন দলের গুরুত্বপুর্ন পদে থেকে বৈধ-অবৈধভাবে অনেক অর্থবিত্তের মালিক হওয়া সম্ভব ছিল।
তিনি বলেন শিক্ষার জন্য সবসময় আমি আপোষহীন থেকেছি। শিক্ষার উন্নয়নে আগামীতে কাজ করে যাব। শিক্ষার উন্নয়নের জন্য তিনি আগামী ২৪ মার্চ পালকি মার্কায় ভোট দিতে এলাকায় ঘরে ঘরে প্রচারনা চালাতে সবার প্রতি আহবান জানান।

এদিকে সবচেয়ে অবাক করা বিষয় হলো ভোটের মাঠে যেখানে টাকার ছড়াছড়ি সেখানে তিনি
নিজস্ব তহবিল ছাড়াই সাধারণ মানুষের ভালবাসা, বন্ধু ও রাজনৈতিক শুভাকাংখী এবং পেশাগত সহকর্মী ভাইদের অনুপ্রেরণা, সাহায্য ও ভালবাসায় ভোট যুদ্ধে এগিয়ে যাচ্ছেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top