porno porn
izmir rus escortlar
porno izle sex hikaye
corum surucu kursu malatya reklam

হ্নীলায় ইয়াবা চালান নিয়ে তুলকালাম কান্ড : জড়িতদের আইনের আওতায় আনার দাবী!

yaba-yaba_10.jpg

বিশেষ প্রতিবেদক : হ্নীলায় দফায় দফায় ইয়াবার চালান খালাস, বহন ও ছিনতাই নিয়ে লংকাকান্ড ঘটেছে। আইন প্রয়োগকারী সংস্থা এবং জনপ্রতিনিধিদের বিধি-নিষেধ সত্বেও এই ধরনের ঘটনা জনমনে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।
জানা যায়,গত ১২ মার্চ রাত ৯টারদিকে হ্নীলা চৌধুরী পাড়া-জালিয়া পাড়ার মধ্যবর্তী ¯øুইচ গেইট হয়ে জনৈক বাদশার ঘেঁর দিয়ে খালাস হয়ে আসা ৪০ হাজার পিস ইয়াবার চালান নাটমোরা পাড়ার শব্বির আহমদের পুত্র রিক্সা চালক জালাল নিয়ে যাওয়ার সময় ৫নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইসমাঈল আরো দু’জন সহযোগী নিয়ে ধরার চেষ্টা করলে জালিয়া পাড়ার দিকে পালিয়ে যায়। এই ঘটনার পর পরই স্থানীয় জনসাধারণ চলমান মাদক বিরোধী অভিযানের মধ্যে এই জাতীয় ঘটনায় সোচ্চার হয়ে উঠেছে।

অপরদিকে ১৩ মার্চ ভোররাত ৪টারদিকে একই পয়েন্ট দিয়ে ৬০হাজার পিস ইয়াবার চালান ৪/৫জন স্বশস্ত্র রোহিঙ্গা খালাস করে নিয়ে যাওয়ার পথে নাটমোরা পাড়ার নুরুল আমিনের পুত্র নুরুল কবির প্রকাশ বেলেইক্কার সামনে পড়লে মাদক চোরাকারবারী গ্রæপ হতভম্ব হয়ে পড়ে। তাদের কাছ থেকে ইয়াবার চালান ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করলে দু’গ্রæপের মধ্যে মারামারী ও হৈ ছৈ পড়ে যায়। মাদক কারবারীরা এক পর্যায়ে নিরুপায় হয়ে ঐ নুরুল কবিরকে প্রানে মারার চেষ্টা করলে গ্রামবাসী এগিয়ে আসে। এক পর্যায়ে মাদক কারবারী চক্র নিরুপায় হয়ে ২কাট তথা ২০হাজার পিস ইয়াবার চালান ফেলে পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থলে উপস্থিত হওয়া লোকজন যাবতীয় উপকরনাদিসহ আহত নুরুল কবিরকে বাড়িতে পৌঁছে দিয়ে আসে। সকালে সে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে যাওয়ার কথা বলে আতœগোপনে চলে যায়।

এই ব্যাপারে জানতে চাইলে আহত নুরুল কবিরের মামা মোঃ হানিফ বলেন,আমি শুনেছি গতরাতে নির্বাচনী পোস্টার লাগিয়ে ফেরার পথে নুরুল কবির একটি স্বশস্ত্র ইয়াবা কারবারী গ্রæপের হাতে পড়ে। তাদের অপকর্ম ফাঁস হওয়ার ভয়ে নুরুল কবিরকে লবণ মাঠে নিয়ে প্রাণনাশের চেষ্টা চালালে খবর পেয়ে গ্রামবাসী গিয়ে উদ্ধার করে।
এই ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি মেম্বার জামাল উদ্দিন ক্ষোভের সুরে বলেন, মাদক দমনে সরকারের পাশাপাশি আমরা গত সপ্তাহে র‌্যালী ও পথসভা করে জনসাধারণকে সচেতন করেছি। এরই মধ্যে ইয়াবার চালান খালাস এবং লুটপাট নিয়ে সৃষ্ট ঘটনা খুবই দুঃখজনক। আমি এই বিষয়টি সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে তদন্ত করে
হ্নীলা ৫নং ওয়ার্ডের প্রকৃত অপরাধীদের আইনের আওতায় আনার জন্য সর্বস্তরের আইন প্রয়োগকারী সংস্থার দ্রæত হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

এলাকাবাসী ইয়াবার চালান খালাস,লুটপাট নিয়ে কানা-ঘুঁষা করলেও প্রভাবশালীদের ভয়ে নিরাপত্তাহীনতার অভাবে প্রকাশ্যে মুখ খুলছেনা। তবে ঘোর মাদক বিরোধী অভিযান এবং অব্যাহত ক্রস-ফায়ারের মধ্যে মাদক কারবারীদের অপতৎপরতায় জনমনে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top
bedava bahis bahis siteleri
bahis siteleri