পুলিশ প্রশাসনের প্রতি গৃহবধু নুরুচ্ছাফার আকুল আবেদন

Abedon.jpg

প্রেস বিজ্ঞপ্তি :

টেকনাফ বাহারছড়ার বড় ডেইল গ্রামের এক গ্রাম্য সহজ সরল গৃহবধু নুরুচ্ছাফা একটি বিষয়ে প্রশাসনের প্রতি আকুল আবেদন করেছেন। উক্ত বিষয় সম্পর্কে গৃহবধু নুরুচ্ছাফা জানান গত ৮ ফ্রেরুয়ারী মানবপাচার রোধে বাহারছড়া পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা এক প্রশংসনীয় অভিযান পরিচালনা করে। তার মধ্যে বাহারছড়া বড় ডেইল এলাকায় আমার বাড়ি থেকে পুলিশ ৮ রোহিঙ্গা নারী পূরুষকে উদ্ধার করে এবং সাথে আমার ১৪ বছরের ছেলে মামুন পুলিশের কাছে আটক হয়। এটা সত্য যে আমার বাড়ি থেকে রোহিঙ্গা গুলো উদ্ধার করেছে। কিন্তু সত্যের মাঝে আরো অনেক সত্য লুকিয়ে আছে। আমার বাড়িটি বড় ডেইল রাস্তার পাশে হওয়াতে স্থানীয় ফজলুল কাদেরের পূত্র সেলিম উল্লাহ এই ৮ জন রোহিঙ্গা আমার বাড়িতে এনে আমাকে বলে যে তারা নতুন রোহিঙ্গা, মায়ানমারে আবার মারামারি হচ্ছে তাই তারা পালিয়ে এসেছে। তারা এখন শামলাপুর চলে যাবে, গাড়ি আসতেছে, কয়েকটা মিনিট তোমাদের ঘরে স্থান দাও এই কথা বলে সেলিম এখন আসতেছি বলে রাস্তার দিকে চলে যায়। অন্যদিকে একটি মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে এই নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের কিছুক্ষণের জন্য আমার বাড়িতে স্থান দেই। কিন্তু কিছুক্ষণ যেতে না যেতে পুলিশ আমার বাড়িতে হাজির। পরবর্তী সবার বলাবলিতে জানতে পারলাম যে এই রোহিঙ্গাদের সেলিম উল্লাহ মালিশিয়া পাচারের জন্য এখানে এনেছে এবং নৌকার জন্য অপেক্ষা করতেছে। তখন জানতে পারলাম প্রকৃত ঘটনাটা কি। আমরা সবাই চাই এই জগণ্য মানবপাচার বন্ধ হোক। অবশ্যই পুলিশের এই অভিযান প্রশংসনীয়। কিন্তু আমার শিশু ছেলে মামুন ও পরবর্তীতে উক্ত ঘটনার ব্যাপারে দায়েরকৃত মামলার এজাহার ভুক্ত আসামী আমার স্বামী মোহাম্মদ উল্লাহ ও নির্দোষ। পুলিশ প্রশাসনের কাছে আমার আকুল আবেদন আপনারা আমার স্বামী ও শিশু সন্তানকে ভুল বুঝবেন না। আমরা গরীব মানুষ,স্থানীয় কিছু জমিতে চাষাবাদ করে আমরা জীবিকা নির্বাহ করি। আমার ছেলে বর্তমানে জেলে গেছে। আমার স্বামীও বর্তমানে মানবপাচার মামলার আসামী হয়ে পালাতক রয়েছে। আমরা কাজ করতে না পারলে সংসারে ব্যাপক অভাব অনটন চলে আসে। দয়া করে আমাদের একটু সাহায্য করুণ। উক্ত মামলা থেকে আমার নির্দোষ ছেলে ও স্বামীকে রেহাই দিন। আমরা শুধু মানবতার খাতিরে রোহিঙ্গা গুলোকে কিছুক্ষণের জন্য বাড়িতে স্থান দিয়ে ছিলাম। কিন্তু এত বড় বিপদ আসবে জানলে আমরা কখনো এই কাজ করতাম না। আমরা সেলিম উল্লাহকে বিশ্বাস করে ভুল করেছি। জীবনে এই বিষয়ে অনেক সতর্ক থাকব। দয়া করে প্রথম বারের মত আমাদের ক্ষমা করে দিন। আমরা গরীব মানুষ আমরা নির্দোষ।

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Top