মাধ্যম ছাড়া এবাদত কবুল হয়না! মানুষ ছাড়া সাহায্য পাওয়া যায়না

Teknaf-Pic-B-26-07-18.jpg

মুক্তিযোদ্ধা সোলতান আহমদ : আমার এক বন্ধু ওহাবী ফেরকার অনুসারী, বন্ধুকে বললাম, খাজা বলেছেন যে, তিনি ইমাম হোসেনের গোলামের গোলাম। তোমার বলার কিছু আছে ? বন্ধু বললো, ‘খাজা বাবা বিরাট ভূল করেছেন’। আমি বললাম, কি রকম ভূল ? বন্ধু বললো, খাজা বাবা যদি বলতেন যে, তিনি আল্লাহর গোলাম তাহলে ঠিক হতো। কারণ ‘ইয়াকানাবুদু’ তথা একমাত্র আল্লাহর ইবাদত করতে হয়। আমি বললাম, বন্ধু, ‘ইয়াকানাসতাইন’ বলতে কি বুঝ ? বন্ধু বললো, একমাত্র আল্লাহর সাহায্য চাই বলতে হবে। আমি বললাম কয়েক বছর আগে কাশ্মিরে ভূমিকম্প হলো এবং হাজার হাজার মুসলমান মারা গেল। লক্ষ লক্ষ মুসলমান, প্রচন্ড ঠান্ডায় বরফ পড়ছে, তাবু নাই, কম্বল নাই, খাদ্য নাই, পানীয় জল নাই, ঔষুধপত্র বলতে কিছু নাই- তারা আল্লাহর কাছে সাহায্য না চেয়ে জাতি সংঘের কাছে সাহায্য কেন চাইলো ? এবাদত করতে গিয়ে ওলির কাছে যেমন যেতে হয়, সাহায্য চাইবার সময় তেমনি জাতি সংঘের সাহায্য চাইতে হয়। মাধ্যম ছাড়া এবাদত যেমন কবুল হয় না তেমনি মানুষ ছাড়া সাহায্য পাওয়া যায়না। সুতরাং মাধ্যম না মেনে নিলে কোনো কাজই করা যায়না। আল্লাহ সবখানে আছেন, কিন্তু সবখানে শেফাতরূপে তথা গুণাবলীরূপে আছেন। শেফাত তথা গুণাবলীর বর্ণনা করতে গেলে একটি র’-শব্দ ব্যবহার করতে হয়, তথা আল্লাহর সৃষ্টি বলতে হয়, যদিও সমস্ত সৃষ্টিই আল্লাহর প্রকাশ ও বিকাশ। কিন্তু আল্লাহকে জাতরূপে তথা মূলরূপে তথা অরিজিন রূপে পাওয়া যায় মাত্র ৩টি স্থানে ; একটি লা-মোকাম,আর একটি জ¦ীনের অন্তর অপরটি মানুষের অন্তর। আল্লাহ বলেছেন ; আমরা তোমাদের শাহারগ তথা জীবন রগের নিকটেই আছি। এই বলাটা জাতরূপে বলা হইয়াছে। সুতরাং আল্লাহর আসল পরিচয় তথা মূল পরিচয়টি মানুষ ছাড়া জানবার কোন আইন রাখা হয় নাই। ঠিক ওই একই রকমভাবে বলা যায় যে, আল্লাহর সমস্ত সৃষ্টি রাজ্যের কোথাও শয়তানকে থাকার অনুমতি দেওয়া হয় নাই। আল্লাহর সমস্ত সৃষ্টি রাজ্য তৌহিদে বাস করে। তৌহিদে শয়তান বাস করতে পারেনা। তৌহিদে শয়তানের বাস একদম নিষিদ্ধ। কেউ বোঝে, আর কেউ বোঝেনা। বোঝাটাও তকদির আর না বোঝাটাও তকদির।
পরিশেষে একটি কথাই বলতে চাই আর সেই কথাটি হল মাধ্যম মেনে না নিলে কোন কাজই করা যায়না। এই বিষয়টি বোঝার ভার শুভাকাংখী পাঠক বৃন্দের উপর ছেড়ে দেওয়া হল।

পরিশ্রম আঘাত আর ত্যাগেই যার জীবন।
নিবেদক :
মুক্তিযোদ্ধা সোলতান আহমদ
০১৮৬৬৪৬৪১০৬
(তথা মুজিব বাহিনী ১নং সেক্টর চট্টগ্রাম)
হ্নীলা , টেকনাফ, কক্সবাজার।