চকরিয়ার যুবক ফারুকের দুটি কিডনী নষ্ট : সহায়তার আবেদন

Chakaria-Picture-30-01-2018.jpg

এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া : চকরিয়া উপজেলার চিরিঙ্গা ইউনিয়নের ৮নম্বর ওয়ার্ডের চরণদ্বীপ এলাকার কৃষক নেজাম উদ্দিনের বড়ছেলে পোশাক শ্রমিক ওমর ফারুকের (২৫) দুইটি কিডনী বর্তমানে নষ্ট হয়ে গেছে। আর্থিক দৈন্যদশার কারনে ভাল মানের চিকিৎসা করতে না পেয়ে টগবগে এ যুবকের জীবনের আলো নিভে যেতে চলছে। ইতোমধ্যে তাঁর পরিবারে যা কিছু ছিল তা বিক্রি করে এবং মানুষের কাছ থেকে দান দক্ষিনা নিয়ে ওমর ফারুকের চিকিৎসা করানো হয়েছে। চট্টগ্রামের মা ও শিশু হাসপাতালের চিকিৎসক অধ্যাপক ডা.এমএ কাশেম এর তত্তাবধানে প্রায় পাঁচমাস চিকিৎসা নিয়েছেন ফারুক।
ফারুকের কৃষক বাবা নেজাম উদ্দিন জানিয়েছেন, তাঁর আগের বাড়ি কুতুবদিয়া উপজেলার দক্ষিন ধুরুন ইউনিয়নে। ঝড়-জলোচ্ছাসের তান্ডব থেকে বাঁচতে কয়েকবছর আগে চকরিয়া উপজেলার চিরিঙ্গা ইউনিয়নের চরণদ্বীপে এসে বসতি গড়েছেন। অভাব অনটনের সংসার। বড়ছেলে ওমর ফারুক চট্টগ্রামে পোশাক শ্রমিকের কাজ করে সংসারের ঘানি টানার পাশাপাশি ছোট তিন ভাই ও দুই বোনের লেখাপড়ার খরচ চালাতেন। কিন্তু নিয়তির নির্মমতার কবলে পড়ে আজ আমি বড়ই নি:স্ব। ছেলের দুইটি কিডনী বর্তমানে প্রায় অকেজো। তাঁর এ অবস্থার কারনে ছোট ভাই-বোনদের লেখাপড়াও বন্ধের উপক্রম হয়েছে। চিকিৎসক জানিয়েছে, উন্নত চিকিৎসার মাধ্যমে শরীরে একটি কিডনী হলেও প্রতিস্থাপন করা সম্ভব হলে হয়তো ওমর ফারুক আরো কিছুদিন সুন্দর পৃথিবীতে বেঁচে থাকবে।
কৃষক নেজাম উদ্দিন জানান, আমার সংসারে যা কিছু ছিল তা বিক্রি করে ইতোমধ্যে ছেলের চিকিৎসা খরচ নির্বাহ করেছি। তাকে উন্নত চিকিৎসা করানো বা একটি কিডনী প্রতিস্থাপনের মতো বিপুল টাকার সামর্থ্য আমার নেই। তাই ওমর ফারুকের জীবন বাঁচাতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও দেশের বিত্তবান দানশীল মানুষের কাছে সহযোগিতার আকুল আবেদন জানাচ্ছি। আপনাদের একটু খানি সহায়তা পেলে আমার ছেলে আবারও ভাল হয়ে উঠবে।
মৃত্যুর পথযাত্রী ওমর ফারুককে সাহায্য পাঠাতে চাইলে যে কেউ যোগাযোগ করতেন পারবেন এই ঠিকানায়। ওমর ফারুক, ডাচ বাংলা ব্যাংক লিমিটেড, আগ্রাবাদ শাখা চট্টগ্রাম। (একাউন্ট নং ১০২১০৩১২৫৮৬৪)। মোবাইল নং ০১৮৩৮-১৬৯৩৮১ ও বিকাশ নাম্বার ০১৮৬৯-৪৫৬২১০।