বাহারছড়ায় ধর্ষণ মামলা তুলে নিতে বাদীকে হত্যার হুমকি

.jpg

নিজস্ব প্রতিবেদক :

টেকনাফ বাহারছড়ার উত্তর শীলখালীতে ধর্ষণ মামলা তুলে নিতে বাদীকে হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এদিকে মামলার বাদী উত্তর শীলখালীর আবুল কালামের পূত্র নুরুল আমিন অভিযোগ করেন আমার আট বছরের মেয়ে বাহারছড়া তাফহীমুল কোরআন মাদ্রাসার দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্রী রিপা আকতার মাদ্রাসা থেকে বাড়ি ফেরার পথে জোর করে তুলে নিয়ে একই এলাকার মোজাহের ইসলামে পূত্র আবু দাউদ (২৫) তার সুপারি বাগানে জোরপুর্বক ধর্ষণ করে রক্তাক্ত করে, পরে এলাকাবাসী আমার মেয়ের আর্তচিৎসকার শুনতে পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে, এসময় মানুষের উপস্থিতি টের পেয়ে ধর্ষক আবু দাউদ কৌশলে পালিয়ে যায়, পরে মাদ্রাসার কতৃপক্ষকের সহযোগীতায় গত ২৭/০১/২০১৭ তারিখে কক্সবাজার নারী ও শিশু নির্যাতন আদালতে আমি বাদী হয়ে আবু দাউদের বিরুদ্ধে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করি যার নাম্বার ৪৭৭(৩)১। আর মামলার পর থেকে আবু দাউদ এখনো পালাতক রয়েছে, শুনেছি সে নাকি চট্রগ্রামে কোনো এক জায়গায় চাকরি করে, দীর্ঘ দিন অতিবাহিত হলেও পুলিশ এখনো ধর্ষককে আটক করতে পারেনি। মামলার বাদী নুরুল আমিন আরো অভিযোগ করেন মামলার হওয়ার পর থেকে আসামীর আত্নীয় স্বজন আমাকে বিভিন্ন ভাবে প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে, তার জন্য তারা আমার উপর দুই দুইবার হামলা করে আমাকে রক্তাক্ত করেছে, এখন আমি জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে অনেক শঙ্গায় আছি, হয় মামলা তুলে নিতে হবে, না হলে আমাকে এলাকা ছাড়তে হবে বলে তারা প্রতিনিয়ত হুমকি দেন। এই ব্যাপারে আমি টেকনাফ মডেল থানায় জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে একটি জিডি করব, খায়রুল বসর নামে এক ইয়াবা ব্যবসায়ী আমাকে প্রতিনিয়ত হুমকি প্রদান করে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য, তিনি গত কাল আমার টমটম গাড়ির সামনে রাস্তায় ব্যারিকেড দিয়ে আমাকে ধর্ষণ মামলা তুলে নেওয়ার জন্য হমকি প্রদান করে, তাই আমি আমার জীবনের নিরাপত্তার জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করি। এদিকে এলাকাবাবাসী ধর্ষক আবু দাউদকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে শাস্তির দাবী করেছেন প্রশাসনের প্রতি।