উখিয়ায় প্রেমিকার অপমান সইতে না পেরে ফেসবুকে স্টাটাস দিয়ে কলেজ ছাত্রের আত্নহত্যা

U.jpg

কায়সার হামিদ মানিক : উখিয়া উপজেলার পাতাবাড়ি এলাকার শৈলার ডেবা গ্রামে প্রেমিকার বিয়ে হয়ে যাওয়া সহ্য করতে না পেরে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে উৎপল বড়ুয়া নামে এক যুবক আত্মহত্যা করেছে। নিজেদের বাগানের আম বাগানের গাছের সঙ্গে ঝুলে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে জানা গেছে। উৎপল শৈলারডেবা গ্রামের কালিধন বড়ুয়ার ছেলে। এলাকাবাসী সুত্রে জানা গেছে, গতকাল মঙ্গলবার সকাল ৭ টার দিকে গ্রামের লোকজন আম গাছের সঙ্গে উৎপলের লাশ ঝুলতে দেখে পরিবারের সদস্যদের খবর দেয়। নিহতের পিতা কালিধন বড়ুয়া জানান, সোমবার রাতে খেয়ে অন্যন্য দিনের মত সে রুমে চলে গিয়েছিল। কখন বের হয়েছে জানেন না বলে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন কালিধন। নিহতের বন্ধু মহল সুত্রে জানা গেছে, চকরিয়া উপজেলার শান্তা বড়ুয়া নামের একটি মেয়ের সঙ্গে উৎপলের দীর্ঘদিন ধরে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। হঠাৎ ১০ দিন আগে অন্য একটি ছেলের সঙ্গে শান্তার বিয়ে হয়ে যায়। তারপর থেকে উৎপল হতাশায় ছিল। অবেশেষে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে সে আত্মহত্যা করল। উৎপলের ফেইসবুক আইডিতে গিয়ে দেখা গেছে, তার শেষ স্ট্যাটাস ছিল ‘জীবনটা আস্তে আস্তে শেষ হয়ে যাচ্ছে’। এর প্রতি উত্তরে বিয়ে হয়ে শান্তা বড়ুয়া পাল্টা স্ট্যাটাস দিয়ে তাকে হেয় করে লিখে, ‘শালার বয়ফ্রেন্ড নাকি আত্মহত্যা করবে. হা হা হা। এর পরই মুলত উৎপল আত্মহত্যার পথ বেচে বলে নিহতের বন্ধু মামুন জানায়। এ ব্যাপারে উখিয়া থানার ওসি মোহাম্মদ আবুল খায়েরের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, সকালে যুবকের লাশ উদ্ধার করার পর নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের অনুমতি থাকায় পরিবারের সদস্যদের নিকট লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে।