ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর কর্মসূচি কেক কাটার মধ্য দিয়ে শুরু

65.gif

টেকনাফ টুডে ডেস্ক : ঐতিহ্যবাহী ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ বৃহস্পতিবার। এ উপলক্ষে সকাল ৮ টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্জন হল প্রাঙ্গণে কেক কাটা হয়। ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ এবং সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন কেক কেটে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচি উদ্বোধন করেন। এর আগে সকাল ৬ টায় সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। সকাল সাড়ে ৬টায় ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করা হয়।
‘শিক্ষা শান্তি প্রগতি’ শ্লোগান নিয়ে ১৯৪৮ সালের এই দিনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রতিষ্ঠা করেছিলেন ছাত্রলীগ। পরবর্তীতে স্বাধীনতা যুদ্ধ থেকে শুরু করে বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামে ঐতিহাসিক ভূমিকা পালন করেছে সংগঠনটির নেতা-কর্মীরা।
প্রতিবছর দিবসটি উপলক্ষে নানা কর্মসূচি পালন করে ছাত্রলীগ। এবছর দিবসটি উপলক্ষে ৬ দিনব্যাপী কর্মসূচি হাতে নিয়েছে সংগঠনটি।
এদিকে এবছর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিন কর্মদিবস হওয়ায় সাপ্তাহিক ছুটির দিন শনিবার শোভাযাত্রা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ছাত্রলীগ। শোভাযাত্রার কারণে যাতে নগরবাসী ভোগান্তিতে না পড়েন সেজন্য এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে সংগঠনটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।
তবে রাজধানীর বাইরের ইউনিটগুলোতে আজই প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হবে।
এছাড়া প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে— আগামীকাল শুক্রবার রাজধানীসহ সারাদেশে গণতন্ত্রের বিজয় দিবস পালন, ৬ জানুয়ারি সকাল ১০টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বঙ্গবন্ধু এভিনিউ পর্যন্ত আনন্দ শোভাযাত্রা, ৮ জানুয়ারি সোমবার দুপুর ২টায় ঢাবির স্বোপার্জিত স্বাধীনতা চত্বরে দুস্থদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ, ৯ জানুয়ারি মঙ্গলবার স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি এবং ১১ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার বেলা ১০টায় অপরাজেয় বাংলায় শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ।
এ ব্যাপারে ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, ছাত্রলীগ বাংলাদেশ রাষ্ট্রের জন্মেরও আগে সংগঠন। আজকের বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পিছনে ছাত্রলীগের ভূমিকা রয়েছে। অতীতের সেই গৌরবের ধারা বজায় রাখতে, সুন্দর বাংলাদেশ গড়তে আমরা কাজ করে যাবো।