পেকুয়ায় আওয়ামী লীগের সমাবেশে জাফর-শেখ হাসিনাকে মুসলিম দেশ সমুহ আগামীতে সুদক্ষ রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে দেখছে

J-1.jpg

এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া : পেকুয়ায় উপজেলা আওয়ামীলীগের সমাবেশে প্রধান অতিথি চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম বলেছেন, শেখ হাসিনা শুধু বাংলাদেশের নেত্রী নন, তিনি বিশে^র মুসলিম উম্মাহ ও মানবতার নেত্রী হিসেবে বিশেষ প্রতিষ্টিত। মুসলিম দেশগুলো শেখ হাসিনাকে তাদের নেতা হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছেন। বিএনপি-জামাত জোট সহ্য করতে না পারলেও আগামী দিনে মুসলিম দেশ সমুহ তাদের নেতৃত্বের জন্য জননেত্রী শেখ হাসিনাকে সুদক্ষ রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে দেখছেন। বিশে^ মানবতার নেত্রী হিসেবে তার নাম উঠে এসেছে। জার্মানীর এনজেলা মেরেকেল ইউরোপে ৫ লক্ষ শরনার্থীকে আশ্রয় দিয়েছিলেন। কিন্ত ক্ষুদ্র আয়তনের বিশাল জনগোষ্টীর এ দেশে প্রতিবেশী দেশ মায়ানমারের ১০ লক্ষ লোককে আশ্রয় দিয়ে বিশ^বে চমকিয়ে দিয়েছেন। উদার মানবতার নেত্রী শেখ হাসিনা মায়ানমারের নিপীড়িত মুসলিমদের আপন করে নিয়েছেন।
গতকাল ২৫ ডিসেম্বর বিকালে পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের আয়োজনে বিশাল সমাবেশে উপজেলা চেয়ারম্যান জাফর আলম আরো বলেন, উন্নয়নের জন্য দরকার, বারে বারে আওয়ামীলীগ সরকার। জননেত্রী শেখ হাসিনার বিচক্ষনতা ও বলিষ্ঠ নেতৃত্বে কারনে সার্বিকভাবে উন্নয়নে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। এক সময়ের তলাবিহীন ঝুড়ির বাংলাদেশ জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতের পরশে এখন বিশে^র মধ্যে এখন ২৮ তম ধনী দেশ।
তিনি বিএনপি-জামাত জোটের সমালোচনা করে বলেন, পেকুয়ার পশ্চিম অংশের এলাকাসমুহ উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত ছিল। তারা আ’লীগ করেন বলেই এলাকার সড়ক,ব্রীজ, কালভার্ট যোগাযোগ ব্যব¯’া অনুউন্নত ছিল। গ্রামীণ অবকাঠামো ও যাতায়াত ব্যব¯’া থেমে গিয়েছিল। বর্তমান সরকার এ সব এলাকায় সুষম উন্নয়ন করছেন। জাতীয় নির্বাচনের আগে আ’লীগের অন্তকোন্দল ও দলাদলি পরিহার করে দলকে নির্বাচনমুখী ও শক্তিশালী করতে কাজ আরম্ভ করার তাগিদ দেওয়া হয়েছে সমাবেশ থেকে। পেকুয়া সদর ইউনিয়নের ১,২ ও ৩ নং ওয়ার্ডের যৌথ উদ্যোগে বিশাল সমাবেশ অনুষ্টিত হয়। বিকেল ৫ টার দিকে সদর ইউনিয়নের মইয়াদিয়া সাইক্লোন সেন্টার প্রাঙ্গনে সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাফর আলম।
ওয়ার্ড আ’লীগের সভাপতি আবদুল মান্নানের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আ’লীগের সভাপতি(ভারপ্রাপ্ত) শাহনেওয়াজ চৌধুরী বিটু, সাধারন সম্পাদক আবুল কাসেম, চকরিয়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম আজাদ, কাকারা ইউপি চেয়ারম্যান শওকত ওসমান, রাজাখালীর চেয়ারম্যান ছৈয়দ নুর, টইটং ইউপি চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম চৌধুরী, উজানটিয়া ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম চৌধুরী, শিলখালী ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি ওয়াহিদুর রহমান ওয়ারেচী, বারবাকিয়ার সভাপতি আবুল হোসেন শামা, উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ বারেক, ছাত্রলীগ সভাপতি কফিল উদ্দিন বাহাদুর, ছাত্রনেতা শহিদুল ইসলাম শাহেদ। এসময় উপ¯ি’ত ছিলেন উপজেলা আ’লীগ নেতা মোস্তাক আহমদ, বশির মেস্ত্রী, মাহাবুব ফকির, মাষ্টার নুর মোহাম্মদ, আবুল কাসেম আজাদ, প্যানেল চেয়ারম্যান শাহাব উদ্দিন, নুরুল আলম মেম্বার, নাছির উদ্দিন, রফিক তাহেরী, জসিম উদ্দিন, জাহাঙ্গীর আলম, মফিজুর রহমান ভেট্রা, রশিদ আহমদ, খালেদ নেওয়াজ, আবু তৈয়ব, কাইছার উদ্দিন ভুট্রো, যুবলীগ নেতা জিয়াউল হক জিকু, সাংবাদিক নাজিম উদ্দিন, সাংবাদিক জালাল উদ্দিন, সাংবাদিক রেজাউল করিম, যুবলীগ নেতা তারেক, আবদুল করিম, হোসাইন মোহাম্মদ বাদশা, মহিউদ্দিন, মনছুর, কাসেম, বাহাদুর, আলতাফ, রিদুয়ান, শ্রমিকলীগ নেতা আতিকুর রহমান, জহির উদ্দিন, ছাত্রলীগ নেতা এহেতাসাম, মো: জকরিয়া, আমিনুর রশিদ, শাহজাহান, মঈন, পারভেজ উদ্দিন নিশান, মনছুর আলম নানক, আরফাত, রিয়াদ, শাহজাহান মিয়া।
সমাবেশ শেষে চকরিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলম জাফর আলম সন্ধ্যার দিকে প্রয়াত উপজেলা আ’লীগ নেতা ফরিদুল আলমের বাড়িতে যান। এ সময় পরিবারের সদস্যদের সাথে স্বাক্ষাত করেন এবং মরহুম ফরিদুল আলমের স্ত্রীর হাতে নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান করেন। #