হ্নীলায় কোটি টাকার ইয়াবার মালিক ও লুটকারীদের বিরুদ্ধে আইনী পদক্ষেপ নেই

Sadek.jpg

টেকনাফ টুডে ডেস্ক : হ্নীলায় খালাসকালে কোটি টাকার ইয়াবা চালান খালাসকালে লুটপাট ও পুলিশী অভিযানে ইয়াবাসহ মহিলা আটকের পরও তদন্ত স্বাপেক্ষে এসব মাদকের মালিক ও ছিনতাইকারী চক্রের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ না থাকায় এই চক্রটি বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। সম্প্রতি এই চক্রের বেপরোয়া কর্মকান্ডের কারণে এলাকায় জনমনে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা গেছে।
তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, গত ২৯ নভেম্বর ভোররাতে হ্নীলা রঙ্গিখালী রাস্তার মাথায় বিরাট একটি ইয়াবার চালান স্থানীয় কবির আহমদের পুত্র আবু বক্কর গংয়ের সহায়তায় খালাসের সময় একই এলাকার দিল মোহাম্মদ জিন্নাহ প্রকাশ লাদেন জিন্নাহর পুত্র সাদেক হোছন ও ভোলাইয়া বৈদ্য গংয়ের কয়েক জনসহ একটি সিন্ডিকেট ইয়াবার চালানটি লুটে নেয়। খবর পেয়ে টেকনাফ মডেল থানা পুলিশ বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ১০হাজার পিস ইয়াবা বড়িসহ স্ত্রী মিনারা বেগম (৩০) কে আটক করে। কিন্তু এই মাদকের চালান উত্তোলন, খালাস, ছিনতাই ও মালিক পক্ষ মোটাংকের মিশন নিয়ে ধামা-চাপা দেওয়ার তৎপরতা শুরু করায় তদন্ত স্বাপেক্ষে মাদক চালানের মালিক, খালাসে জড়িত শ্রমিক ও ছিনতাইয়ে সংশ্লিষ্ট চক্রের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ না নেওয়ায় ট্রতি ভাগে ১০/১৫ লাখ টাকা পেয়ে এখন নতুন গাড়ি ও অস্ত্র-শস্ত্র মওজুদ করছে বলে গুরুতর অভিযোগ উঠছে। এসব অপরাধীরা স্থানীয় চিহ্নিত অপরাধী ও প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় থাকায় সাধারণ মানুষ নিরাপত্তার অভাবে তাদের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে পারছেনা। এই ব্যাপারে সরকারী একাধিক বিশ্বস্থ সংস্থা খতিয়ে দেখে পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে বলে জানা গেছে।