পেকুয়ায় ১৬টি স্থাপনা উচ্ছেদ

3-1.jpg

এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া : পেকুয়ায় প্রবাহমান কাটাফাঁড়ি খালের চর দখল করে স্থাপন করা ১৬টি বসতি উচ্ছেদ করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। গতকাল বুধবার (৬ডিসেম্বর) সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত মগনামা ইউনিয়নের চরপাড়া এলাকায় এসব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করেন পেকুয়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সালমা ফেরদৌস।
এদিকে স্থানীয়দের অভিযোগ সরকার দলীয় বেশ কয়েকজন নেতার কারণে পথে বসেছে ১৬টি পরিবার। সমাজের নিম্ন আয়ের এসব পরিবার গুলোকে প্রলুব্ধ করে সরকারী খাস জমি দখলের বিনিময়ে টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন তারা। এছাড়া ক্ষমতার প্রভাব কাটিয়ে এসব জমিতে পরিবার গুলোকে বসতি স্থাপন করে দিয়েছেন প্রভাবশালীরা।
মগনামা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতা এয়ার মোহাম্মদ, নুর মোহাম্মদ, যুবলীগ নেতা আব্বাস উদ্দিন, কফিল, উজানটিয়া ইউনিয়ন যুবদল নেতা তৌহিদুল ইসলাম সহ বেশ কয়েকজন প্রভাবশালী এ কর্মকান্ডে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত ছিল।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সালমা ফেরদৌস বলেন, সরকারের ১নং খাস খতিয়ানের (খাল শ্রেণী) কাটাফাড়ি খালের উপর এসব ঘর নির্মাণ করা হয়েছিল। এতে খালটি দুষিত হয়ে জলজ প্রাণীর উপর বিরূপ প্রতিক্রিয়া ও নৌযান চলাচলে ব্যাঘাত হচ্ছিল। দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয়দের এসব অভিযোগের প্রেক্ষিতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। এতে সরকারের তিন একর (খাল শ্রেণী) জমি উদ্ধার করা হয়। যার আনুমানিক মূল্য ২০লক্ষ টাকা।
ভ্রাম্যমাণ আদালতের এ অভিযানে পেকুয়া উপজেলা ভূমি অফিসের কর্মকর্তা, পেকুয়া থানা পুলিশ ও পেকুয়া ইউনিয়ন ভূমি অফিসের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।