চকরিয়া পৌর বিএনপির আহবায়ক কমিটিতে গঠনতন্ত্র লঙ্ঘনের অভিযোগ : ৭১জনের স্থলে ৭৪ জনের নামে কমিটি

7-1.jpg

নিজস্ব প্রতিনিধি,চকরিয়া : চকরিয়া পৌরসভা বিএনপির বর্তমান কমিটি বিলুপ্ত ঘোষনা করে ইতোমধ্যে ৭১ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি ঘোষনা করেছেন জেলা বিএনপি। গত ২৯ নভেম্বর জেলা বিএনপির সভাপতি শাহজাহান চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট শামিম আরা স্বপ্না এ কমিটি অনুমোদন করেন।
জেলা বিএনপির দপ্তর সম্পাদক ইউসুফ বদরী স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে চকরিয়া পৌরসভা বিএনপির পুর্নাঙ্গ আহবায়ক কমিটি অনুমোদনের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। অনুমোদিত ৭১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ আহবায়ক কমিটিকে দেখভাল ও পরামর্শ দেয়ার জন্য ১০ সদস্য বিশিষ্ট উপদেষ্টা পরিষদও রাখা হয়েছে।
অভিযোগ উঠেছে, জেলা বিএনপি ৭১ সদস্য বিশিষ্ট চকরিয়া পৌরসভা বিএনপির পুর্নাঙ্গ আহবায়ক কমিটি অনুমোদন দিলেও তাতে কাকতলীয়ভাবে ৭৪জনকে রাখা হয়েছে। এঘটনায় কয়েকদিন ধরে চকরিয়া পৌরসভা বিএনপির বিভিন্নস্তরের নেতাকর্মীদের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। নেতাকর্মীদের অভিযোগ, পৌর বিএনপির পুর্নাঙ্গ আহবায়ক কমিটি অনুমোদনের ক্ষেত্রে সংগঠনের গঠনতন্ত্র লঙ্ঘন করা হয়েছে। গঠনতন্ত্র মেনে কমিটি অনুমোদন দেয়া হলে তাতে ৭১জনই সীমাবদ্ধ থাকতো। অনেকের দাবি, আহবায়ক কমিটির সিনিয়র পদে যাঁরা এসেছেন, তারা মুলত নিজের বলয় ভারী করতে গিয়ে কমিটিতে একাধিক অনুসারী নেতাদের নাম অর্ন্তভুক্ত করেছেন। ফলে জেলা বিএনপি সংখ্যা নির্ণয় না করে ৭৪ জনের ওই কমিটি অনুমোদন দিয়েছেন।
অপরদিকে চকরিয়া পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের মধ্যে কোন কোন ওয়ার্ড থেকে একাধিক জনকে কমিটিতে স্থান দেওয়া হয়েছে। আবার কয়েকটি ওয়ার্ড থেকে সদস্য নেয়া হয়েছে মাত্র কয়েকজন করে। এতে পুর্নাঙ্গ আহবায়ক কমিটিতে স্থান পাওয়া না পাওয়া নিয়েও সাধারণ নেতাকর্মীরা চরম বৈষ্যমের অভিযোগ তুলেছেন।
অনুমোদিত কমিটিতে (১) নূরুল ইসলাম হায়দার আহŸায়ক, (২) অধ্যাপক ফখরুদ্দীন ফরায়েজী ও (৩) এম. মোবারক আলী যুগ্ম-আহŸায়ক করা হয়েছে। সদস্য রয়েছেন (৪) মৌলভী রফিক আহামদ, (৫) গিয়াস উদ্দীন, (৬) আবদুর রহিম, (৭) নূরুল আমিন কাউন্সিলর, (৮), মৌলভী শাহাব উদ্দীন, (৯) নাজেম উদ্দীন (১০) এনামুল হক বাবু, (১১) জসিম উদ্দীন (১২) ফিরোজ আহামদ (১৩) আবদুর রহমান চৌধুরী বাবুল (১৪) আলহাজ্ব মাহমুদুল হক (১৫) জাফর আলম কালু (১৬) আলহাজ্ব শাহাজাহান (১৭) নূরুল আলম (১৮) আবু বক্কর ছিদ্দিক নওশেদ (১৯) আকতার ফারুক খোকন (২০) জাহাঙ্গীর আলম ভুট্টো (২১) শাহজাহান মনির (২২) মো. ইউছুফ সওদাগর (২৩) আনোয়ার হোছন (২৪) ফরিদুল আলম (২৫) হামিদুল হক (২৬) কুতুব উদ্দীন (২৭) মো. সেলিম (২৮) জাকারিয়া হাবিব (২৯) আলী আকবর (৩০) নূরুল হক রিটু (৩১) শহীদুল ইসলাম ফোরকান (৩২) আবদুল কাদের সওদাগর (৩৩) কফিল উদ্দীন (৩৪) জয়নাল আবেদীন কমিশনার (৩৫) এড. নূরুল কাদের (৩৬) এড. মো. ইউনুছ (৩৭) এড. সরওয়ার আলম (৩৮) এড. আবু ছালেহ (৩৯) খালেছা বেগম (৪০) রাশেদা বেগম (৪১) মনোয়ারা বেগম (৪২) জালাল উদ্দীন (৪৩) জসিম উদ্দীন (৪৪) বেলাল উদ্দীন রাজা (৪৫) আবদু শুক্কুর (৪৬) সাইফুল­াহ মানিক (৪৭) ডলি ছিদ্দিকি (৪৮) হাফেজ জয়নাল উদ্দীন (৪৯) নূরুল হুদা (৫০) শাহাব উদ্দীন (৫১), মাহমুদুল করিম (৫২) এইচএম নূরুল আমিন (৫৩) আলহাজ্ব রব্বত আলী, (৫৪) মো. নাছির উদ্দীন, (৫৫) মোহাম্মদ আলী, (৫৬) ইদ্রিস সওদাগর, (৫৭) শাহাব উদ্দীন, (৫৮) শামীম ওসমান, (৫৯) ফয়জুল কবির বাচ্চু, (৬০) নয়ন চৌধুরী, (৬১) জমির উদ্দীন, (৬২) শওকত হোছন পারুল, (৬৩) আনোয়ার হোছন, (৬৪) সাইফুল ইসলাম, (৬৫) নূরুল আলম, (৬৬) শামসুল আলম, (৬৭) আমির আলী, (৬৮) বেলাল উদ্দীন, (৬৯) শাহাজাহান, (৭০), নূরুল ইসলাম, (৭১) নজরুল ইসলাম, (৭২) আহামদ নবী, (৭৩) আমিনুল রশীদ খোকন, (৭৪) মাস্টার আলমগীর হোসেন রানা।
কমিটিতে প্রধান উপদেষ্টা করা হয়েছে আবদুল কাদের চৌধুরী ছুট্টু মিয়া (৩নম্বর ওয়ার্ড)। উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য হিসেবে রয়েছেন- নূরুল হোছেন কোম্পানি (সাবেক কমিশনার) (৮ নম্বর ওয়ার্ড), হাজী নূর আহামদ সওদাগর (৩নম্বর ওয়ার্ড), হাজী ইঞ্জিনিয়ার জহিরুল মওলা (৪নম্বর ওয়ার্ড), মকছুদুর রহমান ম্যানেজার (৯নম্বর ওয়ার্ড), মো. এলাহাদাদ (৭ নম্বর ওয়ার্ড), হাজী মো. হাসান সিকদার (৫নম্বর ওয়ার্ড), হাজী আনোয়ার হোছাইন কোং (২নম্বর ওয়ার্ড), মহিউদ্দীন মেম্বার (৯নম্বর ওয়ার্ড) এবং আবুল হাশেম মেম্বার (৮নম্বর ওয়ার্ড)।