হ্নীলা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের এমপিও স্থগিতাদেশ ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা!

TEKNAF-PIC-20-11-2017.jpg

বিশেষ প্রতিবেদক:
জেএসসি পরীক্ষায় অনিয়মে জড়িত হ্নীলা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের এমপিও স্থগিতাদেশ ধামাচাপা দেওয়ার অপচেষ্টার ঘটনায় সচেতন মহলে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।
জানা যায়,গত ২০১৬ সালের আলহাজ্ব আলী আছিয়া কেন্দ্রের ২নং কক্ষে অনুষ্ঠিত জেএসসি পরীক্ষায় মুখে উত্তর বলে দেওয়ার অপরাধে টেকনাফের হ্নীলা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আবদুস সালামের এমপিও (মানি পেমেন্ট অর্ডার) স্থগিত করার জন্য চট্টগ্রাম মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের এক আদেশে তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন এবং পরীক্ষা সংক্রান্ত শৃংখলা কমিটির সুপারিশমতে ওই শিক্ষকের এমপিও স্থগিত করার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ড চেয়ারম্যান প্রফেসর শাহেদা ইসলাম গত ১২/০৭/২০১৭ইং স্বাক্ষরিত স্মারক নং-চশিবো/প্রশা-২/বিভিন্ন/২১১/৯৮/ (অংশ-৩/৪১০/(৬) তারিখ-১২/০৭/২০১৭ইং ও সুত্র : শৃংখলা কমিটির ২৩/০৪/২০১৭ইং তারিখের সুপারিশ বাস্তবায়ন করে মাষ্টার আব্দুস সালামের এমপিও বাতিল করতে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, কক্সবাজার জেলা প্রশাসক,বিদ্যালয় পরিদর্শক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড চট্টগ্রাম, উপপরিচালক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড,চট্টগ্রাম,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা টেকনাফ ও সংরক্ষণ নথি রেখে পদক্ষেপ নেওয়ার আহবান জানানো হয়। সুচতুর এই মাষ্টার আব্দুস সালাম গোপনে এই সংবাদ পেয়ে মোটাংকের মিশন নিয়ে নানা অপতৎপরতা শুরু করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
এই ব্যাপারে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহেদ হোসেন ছিদ্দিক বলেন, এখনো শিক্ষাবোর্ডের অনুলিপি পাইনি। অনুলিপি হাতে পাওয়া মাত্রই অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে। তিনি আরো বলেন,উক্ত স্থগিতাদেশের পর অভিযুক্ত ব্যক্তির দায়িত্ব পালনের এখতিয়ার থাকতে পারেনা।
সুত্র: টেকনাফ টাইমস