নাইক্ষ্যংছড়িতে পাহাড় কাটা অভিযান চালিয়ে উদ্ধার হলো অস্ত্র ও অবৈধ সরঞ্জাম

IMG_20171119_134212.jpg

শামীম ইকবাল চৌধুরী, নাইক্ষ্যংছড়ি(বান্দরবান)থেকে::
পরিবেশ সংরক্ষণ আইনে পাহাড় কাটার বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও বান্দরবান জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় অনেকেই তা মানছেন না। প্রশাসনের কঠোর নজরদারিতেও থামানো যাচ্ছে না ওই এলাকায় পাহাড় কাটা। উল্টো সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অগোচরে বেড়েই চলেছে একের পর এক পাহাড় কাটার ঘটনা। আর এদিকে নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউনিয়নের ব্যবসায়ী পাড়ায় পাহাড় কাটার অভিযান চালাতে গিয়ে গত রোববার (১৯ নভেম্বর) দুপুরে একটি ভারতীয় বন্দুক (অস্ত্র) , ভিবিন্ন মাদকের সরঞ্জাম ও অর্ধ ডজন জাল পাসর্পোট উদ্ধার করেছে প্রশাসন। ঘটনাস্থলে গিয়ে জানাযায়, দীর্ঘ দিন ধরে ইয়াবাসহ জাল পাসর্পোট ও আদম ব্যবসার সাথে তিন ভাই জড়িত রয়েছে বলে এলাবাসীরা জানান। এরা হলো মৃত আবদুল গফুরের ছেলে মো.ফারুখ, ইয়াছির আরফাত ও হোসনে মোবারক। এই তিন ভাইয়ের যৌথ বসতবাড়ি থেকে এসব উদ্ধার করা হয়।বিভিন্ন সময় গভীর রাতে আগ্নেয় অস্ত্র ও ধারালো অস্ত্রের মহড়া দিয়ে ইয়াবা চালানেরও পাচার করা এলাকার অনেকের চোখে পড়ে। আর এদিকে পাহাড় কাটা অভিযানে নেতৃত্ব দেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এসএম সরওয়ার কামাল। সরামঞ্জাম উদ্ধারের সময় স্থানীয় চেয়ারম্যান,গোয়েন্দা সংস্থার সদস্য ও সংবাদ কর্মীরাও উপস্থিত ছিলেন।

ইউএনও এসএম সরওয়ার কামাল বলেন, ‘ফারুক; বাড়ির পাশের পাহাড় কেটে সাবাড় করছিল- এমন খবরের ভিত্তিতে আমরা ঘটনাস্থলে যায়। পরে পাহাড় কাটার সরামঞ্জাম বসত বাড়ীতে লোকিয়ে রাখার সন্দেহ ভিত্তিতে বাড়ী থানা পুলিশের সদস্য দিয়ে তল্লাশি চালালে একটি বন্দুক, দুটি ওয়াকি টকি, নেশার আওতাভুক্ত শিশা, পেনড্রাইভ, চারটি জাল পাসপোর্ট, নানা জনের নামে ১২ পৃষ্টার ভিসা, দেশ বিদেশের মোবাইল সীম আট এবং পাহাড় কাটার সরঞ্জাম উদ্ধার করে। এসময় বাড়ির সদস্যরা দৌঁড়ে পালায়।

নাইক্ষ্যংছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএইচএম তৌহিদ কবির বলেন, এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট আইনে থানায় মামলা রুজুর প্রস্তুতি চলছে। অপরাধীদের আইনের আওতায় আনা হবে।