চকরিয়ায় কিশোরীকে ভাড়া বাসায় দুইদিন ধরে ধর্ষণ, সাবেক সেনা সার্জেন্ট গ্রেফতার

rape_logo_3892.jpg

মোবাইলে ক্রসকানেশনের মাধ্যমে প্রেমের সর্ম্পক

এম.জিয়াবুল হক, চকরিয়া :
চকরিয়ায় দুইদিন ধরে আটকে রেখে এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে সাবেক এক সেনা সার্জেন্টকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে উপজেলার ডুলাহাজারা ইউনিয়নের মালুমঘাট বাজার এলাকার একটি ভাড়া বাসা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার পুলিশ তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠিয়েছে।
গ্রেপ্তার মো. আসলাম (৫৭) বরিশালের মুলাদী উপজেলার শফিপুর গ্রামের বাসিন্দা। তিনি সেনাবাহিনী থেকে সার্জেন্ট হিসেবে অবসরে গেছেন বলে পুলিশ ও সাংবাদিকদের কাছে দাবি করেন।
চকরিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) জুয়েল চৌধুরী বলেন,, মো. আসলামের সঙ্গে মোবাইলে ক্রসকানেশনের মাধ্যমে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে উঠে চকরিয়া উপজেলার বিএমচর ইউনিয়নের বহদ্দারকাটা গ্রামের ওই কিশোরীর। সম্পর্কের সুত্রধরে গত রোববার (১২ নভেম্বর) ওই কিশোরীকে কৌশলে মালুমঘাট এলাকার ভাড়া বাসায় নিয়ে তুলেন আসলাম। সেখানে তাকে আটকিয়ে দুইদিন ধরে ধর্ষণ করেন তিনি।
গত মঙ্গলবার কৌশলে মেয়েটি ফোন করে ঘটনাটি তাঁর খালা নুরজাহান বেগমকে জানায়। নুরজাহান বিষয়টি থানা পুলিশকে জানালে চকরিয়া থানার ওসি মো.বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরীর নির্দেশে পুলিশের একটিদল গিয়ে মালুমঘাট বাজারের ওই ভাড়া বাসা থেকে কিশোরীকে উদ্ধার ও ধর্ষক আসলামকে গ্রেপ্তার করে।
চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, বুধবার (১৫ নভেম্বর) আক্রান্ত কিশোরীর খালা নুরজাহান বেগম বাদি হয়ে গ্রেফতারকৃত আসলামের বিরুদ্ধে আটক রেখে ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষনের অভিযোগে একটি মামলা করেছেন। গতকাল দুপুরে মামলার প্রেক্ষিতে গ্রেফতারকৃত আসামিকে উপজেলা সিনিয়র জুড়িসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে পাঠানো হয়। শুনানী শেষে আদালতের বিচারক আসামিকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। ওসি বলেন, ধর্ষণের শিকার ওই কিশোরীকে একইদিন সকালে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) পাঠানো হয়েছে।