সাংবাদিকদের সাথে বৈষম্যমূলক আচরণ : টেকনাফে ২ বিজিবির সংবাদ বর্জনের সিদ্ধান্ত

borjon.jpg

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি :
টেকনাফের কর্মরত সাংবাদিকদের সাথে বৈষম্যমূলক আচরণের কারণে ২ বিজিবির সংবাদ বর্জনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ২৬ অক্টোবর বৃহস্পতিবার বিকালে টেকনাফ প্রেসক্লাব সম্মুখে মাথিন কূপ প্রাঙ্গনে সাংবাদিকদের এক মতবিনিময় সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। টেকনাফ প্রেসক্লাবের প্রতিষ্টাতা ও বর্তমান উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য আশেক উল্লাহ ফারুকী (দৈনিক কর্ণফুলীর) সভাপতিত্বে এ মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন, টেকনাফ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি জাবেদ ইকবাল চৌধুরী (দৈনিক আজাদী), সাবেক সহ-সভাপতি মাওঃ তাহের নাঈম (দৈনিক কক্সবাজার ৭১), প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজদ (বাংলাদেশ বেতার), সাবেক সাধারণ সম্পাদক নুরুল করিম রাসেল (দৈনিক যুগান্তর, মোহনা টেলিভিশন, আজকের দেশবিদেশ), সাবেক যুগ্ন সম্পাদক নুরুল হক (দৈনিক সংবাদ, সৈকত), প্রেসক্লাবের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন রশিদ (দৈনিক হিমছড়ি), প্রেসক্লাবের সদস্য আব্দুল্লাহ মনির (দৈনিক আমাদের সময়), সাবেক দপ্তর সম্পাদক ডাঃ কায়সার পারভেজ চেীধুরী দৈনিক আমাদের কক্সবাজার),সাবেক তথ্য গবেষণা সম্পাদক আব্দুস সালাম (বাংলাভিশন, দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন), টিভি জার্নালিস্ট সোসাইটির আহবায়ক শাহীন শাহ (আর টিভি, দৈনিক ভোরের কাগজ), ফোরামের সভাপতি আমান উল্লাহ আমান (দৈনিক মানবজমিন), সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ শাহীন (দৈনিক সকালের কক্সবাজার), ক্রাইম রির্পোটাসের সভাপতি গিয়াস উদ্দিন ভুলু (দৈনিক আজকের কক্সবাজার), সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ আমিন (দৈনিক আমাদের অর্থনীতি), সিঃসহ-সভাপতি মোঃ রাশেদ মাহমুদ রাশেল (দৈনিক আলোকিত সময়), যুগ্ন সম্পাদক জিয়াবুল হক (দৈনিক সুপ্রভাত বাংলাদেশ), মোঃ শহিদুল্লাহ (দৈনিক ইনানী) শামসুদ্দীন (দৈনিক কক্সবাজার ৭১) প্রমূখ।
মতবিনিময় সভায় আলোচনা সাপেক্ষে উপস্থিত কর্মরত সংবাদকর্মীগন এ বিষয়ে একমত হন যে, টেকনাফে ২ বিজিবির বিভিন্ন কর্মকান্ডে টেকনাফ প্রেসক্লাব সদস্য ও জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ মাধ্যম প্রতিনিধিদের সাথে সমন্বয়হীনতার কারণে দূরত্ব বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিভিন্ন সময়ে গণমাধ্যমের একমাত্র স্বীকৃত সংগঠন প্রেসক্লাব কর্মকর্তাদের সাথে বিজিবির দায়িত্বশীলদের মধ্যে নিউজ, চোরাচালান প্রতিরোধসহ সীমান্তের বিভিন্ন পরিস্থিতি নিয়ে মতবিনিময়, ও তথ্য আদান-প্রদান অব্যাহত ছিল। সম্প্রতি প্রেস ক্লাবের সদস্য ও আরো কয়েকটি সংগঠনের সাথে ২ বিজিবির দায়িত্বশীলদের মধ্যে যোগাযোগহীনতা ও সমন্বয়ের অভাব পরিলক্ষিত হচ্ছে। যার একটি প্রকৃষ্ট উদাহারণ ২ বর্ডার গার্ডের প্রতিষ্টা বার্ষিকী অনুষ্টানে প্রেসক্লাবের সদস্যরা আমন্ত্রণ পায়নি। যদিও বা টেকনাফের কর্মরত সাংবাদিকদের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতিহীন দুটি সংগঠনের সদস্যরা আমন্ত্রণ পেয়েছে যদিও বা একই ধরণের আরো দুটি সংগঠন ক্রাইম রির্পোটাস সোসাইটি ও টিভি জার্নালিস্ট সোসাইটির সংগঠনের সদস্যরা আমন্ত্রণ পায়নি। এসব কারণে প্রতীয়মান হয় যে, সীমান্ত সুরক্ষায় নিয়োজিত টেকনাফস্থ ২ বিজিবির সাথে টেকনাফের স্থানীয় সাংবাদিকদের মাঝে বৈষম্যমূলক আচরণের বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে। অতীতের সকল রেকর্ড ভেঙ্গে সাংবাদিকদের সাথে এধরনের বৈষম্যমূলক আচরন কাম্য হতে পারে না। আমরা আশা করব আগামীতে এধরণের আচরণ পরিহার করা হবে।