হোয়াইক্যং-শাপলাপুর সড়ক এখন গর্তে পরিণত

U-1.jpg

মাহফুজুর রহমান হোয়াইক্যং:উপজেলার হোয়াইক্যং-শাপলাপুর ঢালাপথের রাস্তাটি চলাচলের অনুপযোগি হয়ে পড়েছে যেন এক ধরণের বেহাল অবস্থা রাস্তায় খন্ড খন্ড গর্তে পরিণত।রাস্তাটি সংস্কারের এক বছর হতে না হতে এই হোয়াইক্যং-শাপলাপুর সড়ক চলাচলের অনুপযোগি হয়ে পড়েছে প্রাচীন সড়কটি সম্প্রতি টানা বষর্ন প্রায় ছয় কিলোমিটার সড়কে শর্তাধিক স্থানে বড় বড় গর্তে সৃষ্টি হয়েছে উপড়ে গিয়েছে ইট কংকর। ভালভাবে সংস্কার না হওয়ায়,প্রবল বৃষ্টির পানিতে খন্ড খন্ড হয়ে পড়েছে প্রাচীন রাস্তাটি যে পরিমাণ সরকারী নিয়মনীতি মেনে সংষ্কার করা ছিল তা হয়নি তাই বছর না যেতেই গুরুত্বপূর্ণ হোয়াইক্যং-শাপলাপুর সড়কটি খন্ড খন্ড ভেঙ্গে যাচ্ছে। সড়কটি জরুরী সংস্কার না করলে অবশিষ্ট অংশও ভেঙ্গে বিলীন হয়ে যাবে এমনটি অংশকা স্থানীয়দের। টেকনাফ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মৌলভী রফিক উদ্দিন বলেন, হোয়াইক্যং-শাপলাপুর সড়কে প্রভল বৃষ্টির ও ঘূর্ণিঝড় মোড়ার আঘাতে ও অতিরিক্ত গাড়ি চলাচল কারণে হোয়াইক্যং বিদ্যালয়ের সামনে,দৈংগাকাটা,চাকমাপাড়া,কুদুং গুহা, বিভিন্ন স্থানে রাস্তার বেহাল অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। সড়কের শুরু থেকে শেষ মাথা পর্যন্ত ভাঙ্গা আর ভাঙ্গা চোখে পড়ে।সড়কটি দ্রুত সংস্কার জরুরী,স্থানীয়দের অভিযোগ রাস্তার কাজ সঠিক ভাবে না হওয়ায় ভাঙ্গছে। হোয়াইক্যং মডেল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মৌলনা নূর আহমদ আনোয়ারী বলেন,রোহিঙ্গাদের জন্য গাড়ী চলাচল বেশি হয়ে যাওয়ায় এবং প্রবল বৃষ্টি কারণে রাস্তা অনুপযোগী হয়ে পড়েছে,তিনি আরোও বলেন উক্ত সড়কটি অধিকাংশ স্থানে গাইডওয়াল দিয়ে সংস্কার করা না হলে সড়কটি বিলীন হওয়ার আংশকা রয়েছে।স্থানীরা বলেন,এই সড়ক টি আমাদের চলাচলেরও যোগাযোগ ক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একমাত্র রাস্তা কারণ আমাদের ব্যবসা বাণিজ্য রয়েছে তাই প্রতিদিন আসা যাওয়া করতে হয় তাই আমরা মনে করি সড়কটি দ্রুত জরুরি ভিত্তিতে সংস্কার না হলে এই সড়ক বিলীন হওয়ার আশংকা রয়েছে এবং আমাদের ক্ষয়ক্ষতি হবে এবং আমরা সরকারের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের প্রতি আহবান জানায় সড়কের কাজটি দ্রুত করার পদেক্ষেপ নেওয়ার জন্য।