পুটিবনিয়া সেনাবাহিনী হেলথ ক্যাম্পে সূর্যের হাসি ক্লিনিকের সহযোগিতায় নবজাতকের জন্ম

Teknaf-Pic-A-15-10-17.jpg

মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম:পুটিবনিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সূর্যের হাসি ক্লিনিকের সহযোগিতায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী কর্তৃক পরিচালিত হেলথ ক্যাম্পে প্রথম নবজাতকের জন্ম হয়েছে। এছাড়া প্রসূতি,নিরাপদ মাতৃস্বাস্থ্য ও শিশুদের স্বাস্থ্য সেবা প্রদান অব্যাহত রয়েছে।
জানা যায়,গত ১৪ অক্টোবর দুপুর পৌনে ৩টারদিকে উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের রইক্ষ্যংস্থ পুটিবনিয়ায় নবনির্মিত রোহিঙ্গা বস্তিতে মিয়ানমারের বুচিদং হতে নির্যাতন,নিপিড়নের শিকার হয়ে আসা নুরুল ইসলামের স্ত্রী রহিমা বেগম প্রসব যন্ত্রনা নিয়ে সূর্যের হাসি ক্লিনিকের স্বাস্থ্য সেবা ক্যাম্পে আনা হয়। ক্যাম্পে দায়িত্বরত প্রসব অভিজ্ঞ প্যারামেডিক নুর জাহান বেগম ও সঞ্চিতা চাকমা বাংলাদেশ সেনাবাহিনী পরিচালিত হেলথ ক্যাম্পের লেবার রোমে নিয়ে প্রসুতি রহিমা বেগমকে সেনা সদস্যদের বিশেষ সহায়তা ডেলিভারী করা হয়। বিকাল ৩টায় ৩কেজি ওজনের একটি ফুটফুটে বাচ্চার জন্ম হয়। এইটিই এই হেলথ ক্যাম্পের প্রথম প্রসূতি সেবা। তখন রোহিঙ্গা দম্পতিসহ উপস্থিত সকলের মধ্যে আনন্দের ঢেউ উঠে। স্থাপিত এই ক্যাম্পে সূর্যের হাসি ক্লিনিক স্থাপনের পর হতে একদলকর্মী প্রতিদিন আশ্রিত রোহিঙ্গা গর্ভবতী মায়েদের নিয়ে গ্রুপ ভিত্তিক প্রতিদিন চেকআপ,সপ্তাহে ২দিন পুষ্টি বিতরন,মাসে দু’দিন ডিম ও রুটি বিতরন,থামি কাপড়, স্বামীদের উৎসাহের জন্য লুঙ্গি,ছেলে-মেয়েদের জামা বিতরন,প্রসব পরবর্তী নবজাতকের জন্য মাদার এন্ড বেবি কিডসের ব্যবস্থা করে আসছে। এছাড়া চলতি বছরের বিগত ৩০ সেপ্টেম্বর হতে ১৩ অক্টোবর পর্যন্ত সূর্যের হাসি কিøনিক কর্তৃক পরিচালিত স্বাস্থ্য সেবা ক্যাম্পে ৯শ ৯৬জন গর্ভবতী, প্রসব পরবর্তী ১শ ৩৫জন শিশু,২শ ৮০জন ডায়রিয়া,১শ ৮৫জনকে সর্দি কাশি নিউমোনিয়া,১শ ৮৫জনকে ডিপো,৯৮জনকে খাবার বড়ি ও কনডম এবং ৬শ ১৩ জনকে সাধারন স্বাস্থ্য সেবা প্রদানসহ ৯২হাজার ২শ টাকার ঔষধ বিনামুল্যে বিতরণ করা হয়।
উল্লেখ্য যে,বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর পরিচালনায় স্বাস্থ্য ক্যাম্পের দায়িত্ব প্রাপ্ত মেজর ডাঃ ফেরদৌস রহমান (মেডিকেল অফিসার) কর্তৃক স্বাক্ষরিত স্মারক নং-২৩.০১.৯১০.১৬০.০১.০৫৭.১০.০১. ১০.১৭ তারিখ-২ অক্টোবর ২০১৭ইং মুলে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদানের জন্য বিশেষ অনুরোধ পত্র প্রেরন করেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে সূর্যের হাসি ক্লিনিক সেনাবাহিনীর সাথে সমন্বয় করে নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের স্বাস্থ্য সেবায় নিয়োজিত রয়েছে।