টেকনাফে মেম্বার হামিদ হত্যা চেষ্টাসহ ডজন মামলার আসামী আবুল বশর আটক

ges.jpg

নিজস্ব প্রতিনিধি, টেকনাফ :
টেকনাফে ইউপি মেম্বার আবদুল হামিদ হত্যা চেষ্টা মামলার এক আসামীকে আটক করেছে পুলিশ। ধৃত ব্যক্তি হচ্ছে টেকনাফ সদর ইউনিয়নের মহেশখালীয়া পাড়া এলাকার মৃত ফয়েজুর রহমানের ছেলে আবুল বশর (৫০)। ধৃত ব্যক্তির বিরুদ্ধে টেকনাফ ও দেশের বিভিন্ন থানায় মাদকসহ ডজনের বেশী মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে। বুধবার বিকাল ৩টার দিকে পালিয়ে যাওয়ার পথে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে হোয়াইক্যং এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।
টেকনাফ মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ আশরাফুজ্জামান সংবাদের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ধৃত আসামী টেকনাফ সদর ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ড সদস্য আবদুল হামিদ হত্যা চেষ্টা মামলার (নং- ৭২) ৮ নং আসামী। ধৃত ব্যক্তিকে কক্সবাজার জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।
প্রসংগত, গত ২৫ আগস্ট রাতে পৌর এলাকার দ্বীপ প্লাজা মার্কেটের সামনে একটি মোটর পার্টসের দোকানে ঢুকে মেম্বার আবদুল হামিদকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করে ধৃত ব্যক্তিসহ সন্ত্রাসীরা। একটি ছাগল চুরির শালিস বিচারের ঘটনাকে কেন্দ্র করে অভিযুক্ত ব্যক্তিরা হত্যার উদ্দেশ্যে তার উপর হামলা চালায়।
মামলার বাদী আদুল হামিদ মেম্বারের ছোট ভাই মোহাম্মদুল হক জানান, এলাকায় মাদকসহ নানা অপকর্মে বাধা দেওয়ায় সন্ত্রাসীরা ক্ষেপে যায়। এক পর্যায়ে ছাগল চুরির শালিসে আবুল বশর ও তার পুত্র ইব্রাহিম, মিজানুর রহমান ও সাইফুল বিচারে দোষী সাব্যস্থ হওয়ায় আরো বেশী ক্ষিপ্ত হয়ে পরিকল্পিত ভাবে আবদুল হামিদ মেম্বারকে হত্যার উদ্দেশ্যে কুপিয়ে জখম করে। মারাত্মকভাবে আহত হামিদ মেম্বারকে বর্তমানে ঢাকার এপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তার ডান পায়ের গোড়ালী কেটে ফেলা হয়েছে।
তিনি আরো জানান, মামলার অন্যতম আসামী আবুল বশর আটক হলেও তার তিন পুত্রসহ হামলায় অংশগ্রহনকারী অন্যান্য আসামীরা আটক না হওয়ায় তাদের পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থাণীয় অনেকে জানান, এই সন্ত্রাসী গোষ্টিটি এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। অবৈধ অস্ত্র ব্যবহার করে এলাকায় মানুষের জমি দখল, ইয়াবা ব্যবসাসহ নানা অপরাধমুলক কর্মকান্ড ঘটিয়ে আসছিল। এরই ধারাবাহিকতায় স্থানীয় ইউপি মেম্বার আবদুল হামিদ তাদের অপকর্মের বাধা সৃষ্টি হওয়ায় এ হামলা চালিয়েছে। এদের বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার ও টেকনাফে মাদকসহ ডজনের বেশী মামলা রয়েছে।