চকরিয়ায় শেষ মুর্হুতে জমে উঠেছে কোরবানি পশুর হাট

Chakaria-Pic-31-08-17.jpg

এম.জিয়াবুল হক, চকরিয়া :
মুসলামানদের অন্যতম দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব কোরবানি ঈদ উদযাপন হবে আগামী ২ সেপ্টেম্বর। ঈদকে সামনে রেখে চকরিয়া উপজেলার অন্তত ২৫টি ছোট-বড় পশুর হাট শেষ মুর্হুতে জমে উঠেছে।
বাজার ইজারাদার ও ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, এক সপ্তাহ আগে থেকে বাজার শুরু হলেও গত দুইদিন ধরে বেশিরভাগ হাটে কোরবানি পশু বেচাকেনা জমজমাট পরিলক্ষিত হচ্ছে। আগামী কয়েকদিনে বেচাকেনা আরো বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এবার ভারত ও মায়ানমার থেকে কোরবানি পশু দেশে ঢুকলে দেশের উত্তরাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতির কারনে বাজার বেশ মন্দা যাচ্ছে। তবে বরাবরের মতো চকরিয়া উপজেলার এসব হাট-বাজারে ভারত ও মায়ানমারের পশুর চেয়ে স্থানীয় জাতের গরুর চাহিদা বেশি রয়েছে।
চকরিয়া উপজেলার অন্যতম বড় পশুর হাট ইলিশিয়া বাজারের তত্তাবধায়ক মোহাম্মদ কায়কোবাদ বলেন, আমাদের বাজারে সারাবছর পশু বেচাকেনা চলে। তবে কোরবানি ঈদে বিপুল পরিমাণ গরু বিক্রি হয়। এবছরও তাঁর ব্যতিক্রমী হচ্ছেনা। তবে এবার বড় ও মাঝারি সাইজের চেয়ে ছোট গরুর দাম বেশি। ফলে ক্রেতা সাধারণ কয়েকজনের জোটবদ্ধ হয়ে এবার বড় ও মাঝারি সাইজের গরু কিনছেন বেশি।
ঈদুল আযহা উপলক্ষে এবছর চকরিয়া উপজেলার ইলিশিয়া বাজার, ঘনশ্যাম বাজার, মগবাজার কমিউনিটি সেন্টার মাঠ, বাসটার্মিনাল বাজার ছাড়াও কোরবানি পশু বিক্রি হচ্ছে বদরখালী বাজার, ডুলাহাজারা বাজার, খুটাখালী বাজার, বরইতলী গরু বাজার, হারবাং বাজার, ভেন্ডিবাজার, বেতুয়াবাজার, জিদ্দাবাজার, ছিকলঘাট বাজার, মানিকপুর বাজার ও মাঝেরপাড়ি বাজারসহ ছোট-বড় অন্তত ২৫টি হাট-বাজারে।
এদিকে এসব হাট বাজারে কোরবানি পশুর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য চকরিয়া উপজেলা প্রাণী সম্পদ বিভাগের একটি টিম সার্বক্ষনিক কাজ করছেন। উপজেলা ভেটেরিনারী সার্জন ডা.ফেরদৌসী আক্তারের নেতৃত্বে একটি টিম বাজার ঘুরে ঘুরে কোরবানি পশুর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করছেন। অন্যদিকে প্রতি বছরের মতো এবারও বাজারে জালনোটের প্রার্দুভাব ঠেকাতে সোনালী ব্যাংক চিরিঙ্গা শাখার উদ্যোগে জাল টাকা সনাক্ত করণ মেশিন নিয়ে একটি টিম কাছ করছেন। ব্যাংকের কর্মকর্তারা উপস্থিত থেকে মাইকিং করে পশু বিক্রিকালে টাকা গুলো মেশিনে ঢুকিয়ে সনাক্ত করে দিচ্ছেন।
চকরিয়া থানার ওসি মো.বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, উপজেলার কোরবানি বাজারে পশু বেচাকেনা নিবিঘœ করতে পুলিশের একাধিক টিম বাজারে কাজ করছেন। প্রতিদিন বসা পশুর হাট গুলো পুলিশ সদস্যরা ঘুরে ঘুরে টহল দিচ্ছেন। #