প্রাণ বাচাঁতে রোহিঙ্গারা বিজিবিকে ফাঁকি দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করলেও গরু,মহিষ পাচারকারীরা সক্রিয়

IMG_20170829_234749.jpg

জাহাঙ্গীর আলম, টেকনাফ :
মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নির্যাতনে আরকান রাজ্যে থেকে সাধারণ রোহিঙ্গারা নিজেদের প্রান বাচাঁতে ঘড়বাড়ি,গরু,মহিষ,ছাগল রেখে পালিয়ে আসতেছে এর সুযোগে দুই দেশে একটি চোর সিন্ডিকেট সীমান্তে পাড়ি দিয়ে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ সীমান্ত রক্ষীবাহিনী বিজিবির সদস্যদের ফাঁকি দিয়ে বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্রি করে দিচ্ছে।গরু,মহিষ চোর সিন্ডিকেটরা এসব পাচার করে দেশে এনে সীমান্তের আশপাশের গ্রামে রাখে পরে বিভিন্ন স্থানে ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলে সিন্ডিকেটরা ট্রাক ও মিনিট্রাক দিয়ে শত শত গরু,মহিষ পাচার করে দিচ্ছে। একদিকে সাধারণ রোহিঙ্গারা সেনাবাহিনীর অত্যাচার,নির্যাতন হতে বাচাঁর তাগিদে যে যেখানে পারছে ছুটতে অন্যদিকে চোর সিন্ডিকেটার কোরবান ঈদকে সামনে রেখে গরু,মহিষ পাচার করে নিয়ে যাচ্ছে।সূত্রমতে, হোয়াইক্যং,তুলাতলী,উলুবনিয়া রাস্তামাতা,কাটাখালী,হারিংগাঘোনা,কেরুনতলী,ঝিমংখালী,কান্জরপাড়া সহ বেশ কিছু সীমান্ত পয়েন্ট দিয়ে বিজিবিকে ফাঁকি দিয়ে ডুকে পড়ছে বাংলাদেশে গরু,মহিষ।সীমান্ত এলাকায় বসবাসরত স্থানীদের সাথে আলাপকালে জানা যায়,র্বামার রোহিঙ্গারা প্রাণ বাচাঁতে বাংলাদেশে চলে আসলেও স্থানীয় চোর সিন্ডিকেটরা সকলের অবস্থানের গতি বুঝে নাফ নদী পেরিয়ে সীমান্ত তাকা গুরু,মহিষ,পার করে আনতেছে।সীমান্তের উপারে তমে তমে গুলির শব্দ হলেও চোর সিন্ডিকেটরা এসবের তোয়াক্কা না করে গরু,মহিষ এনে বিক্রি করে দিচ্ছে সাধারণ রোহিঙ্গাদের নির্যাতনের শেষ নেই।এবং এসব বিষয় পদেক্ষেপ নেওয়ার জন্য আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর প্রতি দৃষ্টি আর্কষন করেন স্থানীয়রা।