মানবপাচারের অভিযোগে যুবদল নেতা সেলিমকে অর্থদন্ড

Selim_Teknaf-Pic-29-08-2017.jpg

জসিম উদ্দিন টিপু,টেকনাফ::
রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশে সহায়তা করায় হ্নীলা দক্ষিণ যুবদলের সাধারণ সম্পাদক জাদীমুরা নয়াপাড়া এলাকার নুর হোসেন প্রকাশ নাগু মিয়ার পুত্র সলিমকে অর্থ দন্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমান আদালত। ২৯ আগষ্ট মঙ্গলবার টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট জাহিদ হোসেন ছিদ্দিকের নেতৃত্বে পরিচালিত ভ্রাম্যমানে আদালতে তাকে এই দন্ড প্রদান করা হয়। রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশে সহায়তা করার অপরাধে যুবদল নেতা সলিমকে টেকনাফ থানা পুলিশের সহযোগীতায় আটক করা হয়। তবে শারীরিক অসুস্থতার কারণে মানবিক বিবেচনায় অর্থদন্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমান আদালত। টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাইন উদ্দিন খাঁন জানান, পা ভাঙ্গা এবং কানে রোগ থাকায় দালাল সলিমকে ভ্রাম্যমান আদালত অর্থদন্ড দিয়েছেন। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনাকারী ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদ হোসেন ছিদ্দিক জানান, রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশে সহায়তা করার অপরাধে শারীরিকভাবে অসুস্থ হওয়ায় সলিমকে কেবল অর্থদন্ড দেওয়া হয়েছে। এদিকে যুবদল নেতা সলিম ও স্থানীয় কতিপয় নেতৃত্বে জাদীমুরা সীমান্ত দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে আদম পারাপারের ঘাট রয়েছে। ঐঘাট দিয়ে রাতের আঁধারে এপার থেকে নৌকা পাঠিয়ে ওপার থেকে রোহিঙ্গা ও ইয়াবার বড় চালান নিয়ে আসছে। স্থানীয় লোকজন, রোহিঙ্গা ও মাদকের চালান অনুপ্রবেশ ঠেকাতে শুরু থেকেই এসব আদমঘাট বন্ধের দাবী জানিয়ে আসছিল। জরুরী ভিত্তিতে আদম পারাপারে জড়িত ঘাট মালিকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন টেকনাফ হ্নীলা মানুষ।