স্বামীকে হারিয়ে ইজ্জত বাঁচাতে এপারে ঢুকে পড়েছি

Shahid-Ukhiya-Pic-28-08-2017654-1.jpg

শহিদুল ইসলাম, উখিয়া (কক্সবাজার) :
মিয়ানমার সেনাবাহিনীর অত্যাচার নির্যাতন জুলুম থেকে বাঁচতে স্বামীকে মিয়ানমারে রেখে এসে ২ সন্তান নিয়ে গতকাল সোমবার ২ রোহিঙ্গা নারী কুতুপালং ক্যাম্পে আশ্রয় নিয়েছে। মংডু জেলার মাছছিল্লা পাড়ার আজিজুল হকের স্ত্রী তসলিম ফাতেমা জানান, রোহিঙ্গারা জীবন বাঁচাতে এদেশে চলে আসছে। সেনাবাহিনীর নির্যাতন নিপীড়ন ও ধর্ষনের ভয়ে ইজ্জত বাঁচাতে বেশিরভাগ নারীরা এপারে চলে আসছে। সহায় সম্পত্তি ফেলে আসা এ রোহিঙ্গা নারী জানান, বর্তমানে যেভাবে মগ সেনারা জুলুম অত্যাচার নির্যাতন, বাড়ি ঘরে আগুন দিয়ে, গ্রামের পর গ্রাম জ্বালিয়ে দিচ্ছে আরকান রাজ্যে মুসলিম শূন্য হয়ে পড়বে। আমিও তাই ইজ্জত বাঁচাতে এদেশে চলে এসেছি। গতকাল সোমবার সকালে ঐ রোহিঙ্গা নারীর সাথে কথা হলে এসব তথ্য আবেগ আপ্লুত হয়ে জানান। অপর রোহিঙ্গা নারী রহমত উল্লাহর স্ত্রী আশেক আরা বলেন, আমার সামনে স্বামীকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। জীবন বাজি রেখে কোন রকম কোলের সন্তানকে বুকে জড়িয়ে অন্যান্য মুসলিম নারীদের সাথে আমিও এপারে চলে এসেছি। এখানে নতুন কোন কিছুই চিনিনা। স্বামীকে হারিয়ে ছোট্ট বুকের সন্তানকে কোলে নিয়ে কোন রকম এপারে আসলেও এখনো পর্যন্ত মুখে কোন খাবার জুটেনি। গতকাল সোমবার সকালে কুতুপালং রোহিঙ্গা বস্তি এলাকায় ঐ রোহিঙ্গা নারীদের সাথে কথা হলে তারা লোমহর্ষক বর্ণনা দেন।